গ্রাফিক্স ডিজাইন সফটওয়্যার

গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখতে গেলে কিংবা গ্রাফিক্স ডিজাইন করতে গেলে গ্রাফিক্স ডিজাইন সফটওয়্যার প্রয়োজন হবেই। আপনি যদি গ্রাফিক্স ডিজাইন এ নতুন হয়ে থাকেন, তবে গ্রাফিক্স ডিজাইন করতে যেসব সফটওয়্যার প্রয়োজন হয়, সেসব সফটওয়্যার সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে রাখা প্রয়োজন। কারণ, গ্রাফিক্স ডিজাইন শেখার সময় এসব সফটওয়্যার কিভাবে চালাতে হয় এবং এই সফটওয়্যার গুলো দিয়ে কিভাবে ডিজাইন করতে হয় সেসব শিখানো হবে।

গ্রাফিক্স ডিজাইন করার জন্য অনেক সফটওয়্যার রয়েছে। প্রতিটি সফটওয়্যার এর কাজ ভিন্ন এবং আপনি চাইলে এসব সফটওয়্যার শিখে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। গ্রাফিক্স ডিজাইন সফটওয়্যার নিয়ে আজকের এই ব্লগে আপনাদের সাথে বিস্তারিত তথ্য শেয়ার করবো। তো চলুন, মূল বিষয়ে ফিরে আসা যাক।

গ্রাফিক্স ডিজাইন সফটওয়্যার
গ্রাফিক্স ডিজাইন সফটওয়্যার

গ্রাফিক্স ডিজাইন কি?

গ্রাফিক্স ডিজাইন হলো একটি সৃজনশীল প্রক্রিয়া যার মাধ্যমে চিত্র, লোগো, প্যাকেজিং, ব্রোশার, বুকলেট, বিজনেস কার্ড, অ্যানিমেশন, ওয়েব ডিজাইন এবং অন্যান্য মাধ্যমে সামাজিক বা ব্যবসায়িক প্রচার-প্রচার উদ্দেশ্যে ছবি তৈরি করা হয়। ছবি, রঙ, টেক্সচার এবং অন্যান্য উপাদানগুলির একসাথে মিলিয়ে বিভিন্ন ধরণের ডিজাইন তৈরি করাই হচ্ছে গ্রাফিক্স ডিজাইন।

গ্রাফিক্স ডিজাইনের প্রাথমিক লক্ষ্য হলো একটি বিষয় বা কনসেপ্টের মাধ্যমে বাক্য অথবা আইডিয়ার সাথে লোগো, ছবি বা অন্য প্রকারের চিত্র তৈরি করা। গ্রাফিক্স ডিজাইন করা হয় মানুষকে আকৃষ্ট করার জন্য এবং এতে করে নিজেদের ব্যবসায়িক চাহিদা মেটানো হয়ে থাকে। যেমন – বিভিন্ন বিজ্ঞাপন গ্রাফিক্স ডিজাইন করে তৈরি করা হয়ে থাকে, এসব বিজ্ঞাপন দ্বারা ব্যবসায়ের সম্প্রসারণ করা হয়ে থাকে।

গ্রাফিক্স ডিজাইনে ব্যবহৃত টুলস এবং সফ্টওয়্যারগুলির মধ্যে রয়েছে Adobe Photoshop, Adobe Illustrator, CorelDRAW, Inkscape, GIMP এবং আরও অনেক বহুল ব্যবহৃত সফ্টওয়্যার।

গ্রাফিক্স ডিজাইন সফটওয়্যার

গ্রাফিক্স ডিজাইন সফটওয়্যারগুলি ভিজ্যুয়াল কন্টেন্ট সৃষ্টি এবং প্রকাশনা করার জন্য ব্যবহার করা হয়। রঙ, টেক্সচার, ছবি এবং অন্যান্য উপাদান ব্যবহার করে এসব সফটওয়্যার দিয়ে বিভিন্ন ধরণের গ্রাফিক ডিজাইন তৈরি করা হয়ে থাকে। গ্রাফিক্স ডিজাইন সফটওয়্যারগুলির মাধ্যমে ডিজাইনাররা তাদের আইডিয়া ব্যবহার করে বিভিন্ন ধরণের ডিজিটাল আর্ট তৈরি করে থাকে। গ্রাফিক্স ডিজাইন করার অনেক সফটওয়্যার রয়েছে। এমন কিছু সফটওয়্যার হচ্ছে –

  • Adobe Photoshop
  • Adobe Illustrator
  • CorelDRAW
  • Inkscape
  • GIMP (GNU Image Manipulation Program)

উপরে উল্লিখিত এসব সফটওয়্যার ব্যবহার করে গ্রাফিক্স ডিজাইন করা হয়ে থাকে। আপনি যদি একজন গ্রাফিক্স ডিজাইনার হতে চান, তবে আপনাকে এসব সফটওয়্যারে পারদর্শী হতে হবে। তো চলুন, এই সফটওয়্যারগুলো নিয়ে আরও বিস্তারিত জেনে নেয়া যাক।

Adobe Photoshop

Adobe Photoshop হল একটি গ্রাফিক্স ডিজাইন এবং সম্পাদনা সফটওয়্যার যা অ্যাডোবি সিস্টেমস দ্বারা তৈরি। ছবি সম্পাদনা, গ্রাফিক্স তৈরি, ডিজাইন, এবং আরও অনেক কিছু করা যায় এই সফটওয়্যার দিয়ে। Photoshop একটি শক্তিশালী সফটওয়্যার যা দিয়ে আপনি আপনার ছবিতে রঙ পরিবর্তন, আকার পরিবর্তন, টেক্সচার যোগ করা, এবং আরও অনেক কিছু করতে পারবেন। Adobe Photoshop দিয়ে বিভিন্ন ধরণের গ্রাফিক্স তৈরি করতে পারবেন, যেমন লোগো, পোস্টার, ব্যানার, এবং আরও অনেক কিছু।

Photoshop একটি প্রফেশনাল গ্রাফিক্স ডিজাইন সফটওয়্যার। এই সফটওয়্যারটি নতুনদের জন্যও ব্যবহার করা সহজ। ফটোশপে আছে ইউজার ফ্রেন্ডলি ইন্টারফেস। যা আপনাকে সহজেই সফটওয়্যারটি ব্যবহার করতে এবং আপনার কাজ বাড়তি সুবিধা তৈরি করে দিতে সক্ষম।

ফটোশপ একটি প্রফেশনাল সফটওয়্যার যা বিশ্বের প্রায় প্রতিটি দেশের মানুষ ব্যবহার করে থাকে। গ্রাফিক্স ডিজাইন, ছবি এডিট সহ আরও অনেক কাজে ফটোশপ ব্যবহৃত হয়ে থাকে।

Adobe Photoshop-এর কিছু গুরুত্বপূর্ণ বৈশিষ্ট্য এবং ব্যবহার নিম্নলিখিত:

  1. ছবির এডিট: Adobe Photoshop এর বহুল ব্যবহার হলো ছবি এডিট করা। এটি একটি শক্তিশালী সফটওয়্যার যার মাধ্যমে যেকোনো ছবি ক্রিয়েটিভ ভাবে এডিট করতে পারেন। ফটো রিস্টোরেশন, ব্যাকগ্রাউন্ড রিমুভ, ছবির রিসাইজিং, স্পেশাল ইফেক্ট ইত্যাদি সকল কাজ করা সম্ভব এই গ্রাফিক্স ডিজাইন সফটওয়্যার দিয়ে।
  2. ভেক্টর গ্রাফিক স্কেচ: এই সফটওয়্যারে আপনি ভেক্টর ভিত্তিক গ্রাফিক ডিজাইন করতে পারবেন। লোগো, ইলাস্ট্রেশন, ব্রোশার ইত্যাদি তৈরি করার জন্য বহুল ব্যবহৃত একটি সফটওয়্যার এটি। Adobe Illustrator এর সাথে মিলিয়ে কাজ করলে আরও ভালো মানের ছবি তৈরি করা যায় ফটোশপ দিয়ে।
  3. মোবাইল ফটো এডিটিং: Adobe Photoshop এর মোবাইল ভার্সন, অর্থাৎ Adobe Photoshop Express, স্মার্টফোনে ফটো এডিট করার একটি জনপ্রিয় অ্যাপ। স্মার্টফোন বা ট্যাবলেটে ছবি এডিট, ফিল্টার, ইফেক্ট, স্লাইড শো ইত্যাদি করতে পারবেন এই অ্যাপ দিয়ে।
  4. অ্যানিমেশন তৈরি: আপনি Ph otoshop-এ ছবির উপর বিভিন্ন ধরণের অ্যানিমেশন তৈরি করতে পারবেন, যা ওয়েব সাইট, প্রেজেন্টেশন, বিজ্ঞাপন বা মাল্টিমিডিয়া প্রদর্শনীতে ব্যবহার করা যায়।

Adobe Illustrator

Adobe Illustrator একটি গ্রাফিক্স ডিজাইন সফটওয়্যার। এই সফটওয়্যার দিয়ে আপনি গ্রাফিক্স ডিজাইন সম্পর্কিত সকল কাজ করতে পারবেন। ইলুস্ট্রেটর ছাড়া গ্রাফিক্স ডিজাইন এর কাজ সম্পন্ন করা সম্ভব না। আপনি যদি গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখতে চান, তবে আপনাকে এই সফটওয়্যার চালাতে পারদর্শী হতে হবে। ইলুস্ট্রেটর এবং ফটোশপ দিয়ে আপনি অনেক সুন্দর এবং প্রফেশনাল গ্রাফিক্স ডিজাইন করতে পারবেন।

আরও পড়ুন – গ্রাফিক্স ডিজাইন শেখার ওয়েবসাইট

অ্যাডোবি ইলাস্ট্রেটর হচ্ছে একটি ভেক্টর গ্রাফিক্স সম্পাদনাকারী সফটওয়্যার। যা শুধু ইলাস্ট্রেটর নামেই বেশি পরিচিত। এই সফটওয়্যারটি তৈরি ও বাজারজাত করেছে অ্যাডোবি সিস্টেমস। অ্যাডোবির সবথেকে জনপ্রিয় সফটওয়্যারগুলোর মধ্যে এটি অনতম। এর মাধ্যমে সকল গ্রাফিক্স ডিজাইন, লোগো, ব্যানার তৈরি করা যায়। এর সর্ব শেষ সংস্করণ ইলাস্ট্রেটর সিসি যা ২০২২ সালে বের হয়েছে।

CorelDRAW

CorelDRAW একটি প্রফেশনাল ভেক্টর গ্রাফিক্স এডিটিং সফটওয়্যার, যা করেল কর্পোরেশন দ্বারা প্রকাশিত হয়েছে। এটি বিভিন্ন ধরনের ডিজাইন ও প্রিন্টিং কাজে ব্যবহৃত হয়। যেমন লোগো ডিজাইন, ব্রোশার, পোস্টার, ব্যানার, এবং বিভিন্ন প্রকারের প্রমোশনাল ম্যাটেরিয়াল তৈরি করা।

গ্রাফিক্স ডিজাইন, ফটো এডিটিং, ফন্ট ম্যানেজমেন্ট, স্ক্রিনশট সংগ্রহ এবং ডিজিটাল ইমেজ তৈরির সময় এই গ্রাফিক্স ডিজাইন সফটওয়্যারটি ব্যবহৃত হয়। আপনি যদি একজন প্রফেশনাল গ্রাফিক্স ডিজাইনার হতে চান, তবে CorelDRAW শিখতে পারেন। এতে করে, আপনার কাজের গতি এবং দক্ষতা বৃদ্ধি পাবে।

Inkscape

Inkscape একটি ওপেন সোর্স ভেক্টর গ্রাফিক্স এডিটিং সফটওয়্যার যা মূলত স্বাধীনভাবে ব্যবহার করা যায়। এটি বিনামূল্যে প্রযুক্তিগত সফটওয়্যার প্রকল্প এবং লাইসেন্সটি GNU General Public License (GPL) অধীনে প্রকাশিত হয়েছে, যার ফলে এটি ব্যক্তিগত বা ব্যবসায়িক উদ্দেশ্যে ব্যবহার করা যায়।

Inkscape অবশ্য CorelDRAW বা Adobe Illustrator এর মতো বড় এবং ভারী সফটওয়্যার নয়। তবে এটি ভেক্টর গ্রাফিক্স এডিটিং এ অনেক শক্তিশালী এবং প্রয়োজনীয় একটি সফটওয়্যার। এটি সহজ ইন্টারফেসে বিভিন্ন গ্রাফিক্স প্রক্রিয়া করার সুযোগ প্রদান করে, এবং পেন টুল, শেপ ড্রোয়িং, প্রাসঙ্গিকভাবে প্রযুক্তিগত ফাইল সাপোর্ট, পাথ সম্পাদনা, টেক্সট সম্পাদনা, বিভিন্ন আকারের বিন্যাস সাপোর্ট এবং অনেক অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ বৈশিষ্ট্য রয়েছে।

GIMP

GIMP (GNU Image Manipulation Program) হল একটি ওপেন সোর্স গ্রাফিক্স এডিটিং সফটওয়্যার। এই সফটওয়্যারটি দিয়ে আপনি যেকোনো ফরম্যাট এর গ্রাফিক্স ডিজাইন করতে পারবেন। এছাড়াও, এই সফটওয়্যার দিয়ে ছবি এডিট, ভেক্টর এডিট এবং আরও অনেক কাজ করা যায়।

আপনি যদি একজন গ্রাফিক্স ডিজাইনার হতে চান, তবে উপরে উল্লিখিত গ্রাফিক্স ডিজাইন সফটওয়্যার গুলোর পাশাপাশি আপনাকে এই সফটওয়্যারটিও শিখতে হবে।

আমাদের শেষ কথা

আজকের এই পোস্টে আপনাদের সাথে বিভিন্ন গ্রাফিক্স ডিজাইন সফটওয়্যার নিয়ে আলোচনা করেছি। গ্রাফিক্স ডিজাইন করে অনেকেই টাকা ইনকাম করার জন্য তাদের ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ার শুরু করতে চান। আপনিও যদি তাদের মধ্যে একজন হয়ে থাকেন, তবে আশা করছি এই পোস্টটি থেকে সকল সফটওয়্যার সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পেরেছেন। এমন আরও বিভিন্ন তথ্য জানতে প্রতিদিন আমাদের ওয়েবসাইট ভিজিট করুন।