অনলাইন থেকে আনলিমিটেড টাকা ইনকাম করার সহজ উপায় বাংলাদেশে

আলোচ্য বিষয়াবলী

আলোচ্য সূচি:

প্রিয় পাঠক আপনি কি অনলাইনে টাকা ইনকাম করার জন্য টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট সম্পর্কে সঠিক গাইডলাইন খুঁজছেন? যদি খুঁজে থাকেন তাহলে এই পোস্টটি পড়ুন। কেননা আমরা আমাদের এই পোস্টের মধ্যে  অনলাইন থেকে আনলিমিটেড টাকা ইনকাম করার সহজ উপায় বাংলাদেশে সম্পর্কে বিস্তারিত ব্যাখ্যা করেছে। তাহলে আর দেরি কেন! ঝটপট সম্পূর্ণ পোস্টটি মনোযোগ দিয়ে পড়ে নিন এবং অনলাইন থেকে আনলিমিটেড টাকা ইনকাম করার সহজ উপায় বাংলাদেশে সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নিন।

টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট

আশা করছি এই পোস্টটি শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত অত্যন্ত মনোযোগ সহকারে পড়ার মাধ্যমে আপনি খুব সহজেই অনলাইনে ইনকাম করার জন্য অনলাইন থেকে আনলিমিটেড টাকা ইনকাম করার সহজ উপায় বাংলাদেশে কোনগুলো সেই সম্পর্কে বিস্তারিত ধারণা পেয়ে যাবেন এবং আপনি আপনার অনলাইন ভিত্তিক অর্থ উপার্জনের যাত্রা খুব দ্রুত শুরু করতে সক্ষম হবেন। 

অনলাইন থেকে আনলিমিটেড টাকা ইনকাম করার সহজ উপায় বাংলাদেশে: ভূমিকা

বর্তমান প্রতিযোগিতামূলক যুগে প্রায় সবাই তার ফিক্সড ইনকামের পাশাপাশি কিছু বাড়তি আয় করার জন্য অনলাইন ভিত্তিক বিভিন্ন টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট সম্পর্কে জানতে চাই। তাই আমরা ঠিক করেছি আমরা আপনাদেরকে এমনই ১৫টি সেরা টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট এর সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেব। আমাদের এই পোস্টের মধ্যে আমরা যেসব টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট গুলোর নাম উল্লেখ করেছি সেগুলো অনলাইনে টাকা ইনকাম করার জন্য শতভাগ বিশ্বস্ত ওয়েবসাইট। 

তাই এই ওয়েবসাইট গুলোতে কাজ করে টাকা ইনকাম করতে পারবেন কিনা বা কাজ করার পর আদৌও কাজের পেমেন্ট পাবেন কিনা সেই বিষয়ে নিশ্চিন্তে থাকুন। তবে এক্ষেত্রে একটি বিষয় উল্লেখ না করলেই নয়। সেটা হচ্ছে আমাদের এই পোস্টের মধ্যে উল্লেখিত টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট গুলোতে যখন আপনি কাজ করবেন তখন অবশ্যই অত্যন্ত মনোযোগ দিয়ে এবং পরিশ্রমের সহিত ধৈর্য ধরে আপনাকে কাজ করতে হবে। তবেই আপনি সফল হতে পারবেন। অন্যথায় সফল হওয়া সম্ভব নয়। 

আরো পড়ুনঃ টাকা ইনকাম করার অ্যাপ [year] বাংলাদেশ

সুতরাং, টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট এর খোঁজে অন্য কোথাও না গিয়ে বা মনোযোগ অন্য কোথাও না দিয়ে আপনার সম্পূর্ণ মনোযোগ আমাদের এই পোস্টটি ভালোভাবে পড়তে কাজে লাগান। তাহলে চলুন আর বাড়তি কথা না বলে সরাসরি মূল আলোচনায় চলে যাওয়া যাক।

টাকা কামানোর ওয়েবসাইটঃ বাংলা কন্টেন্ট রাইটিং ওয়েবসাইট (Bangla Content Writing Website)

শুরুতেই অনলাইনে আয় করার ওয়েবসাইট হিসেবে আমরা আপনাদের সামনে এমন কতগুলো ওয়েবসাইটের কথা বলতে চাই যেগুলোতে আপনি বাংলা কন্টেন্ট রাইটিং এর কাজ করার মাধ্যমে খুব সহজেই ঘরে বসে ইনকাম করতে পারবেন।বর্তমানে বাংলাদেশের বেশ কতগুলো বাংলা ওয়েবসাইট রয়েছে যেগুলোতে কন্টেন্ট রাইটিং এর জন্য বাংলা কন্টেন্ট রাইটার হায়ার করে থাকে। এই সমস্ত ওয়েবসাইট গুলোতে কন্টেন্ট রাইটিং এর কাজ করে ইনকাম করার ক্ষেত্রে সবচেয়ে মজার বিষয় হলো আপনি এই কাজটি আপনার দিনের যেকোনো অবসর সময়ে বাসায় বসে থেকেই করতে পারবেন এবং আপনার ইনকাম করা টাকা আপনি যে কোন ডিজিটাল পেমেন্ট সিস্টেম যেমন- বিকাশ, রকেট, নগদ ইত্যাদির মাধ্যমে নিতে পারবেন। 

এছাড়াও এই সমস্ত বাংলা কন্টেন্ট রাইটিং এর ওয়েবসাইট গুলো থেকে আপনি প্রতি মাসে ভালো অ্যামাউন্টের টাকা আয় করতে পারবেন। আর কন্টেন্ট রাইটিং এর জন্য বাংলাদেশের কয়েকটি বিশ্বস্ত এবং সেরা বাংলা ওয়েবসাইট এর নাম লিঙ্ক সহ নিম্নে উল্লেখ করা হলোঃ

উপরিউক্ত এই সমস্ত বাংলা কন্টেন্ট রাইটিং এর ওয়েবসাইটে কন্টেন্ট রাইটার হিসেবে কাজ করার জন্য আপনার অবশ্যই কন্টেন্ট রাইটিং স্কিল থাকতে হবে। আর আপনার যদি কন্টেন্ট রাইটিং স্কিল থাকে তাহলে আপনি যেমন এই সমস্ত ওয়েবসাইটে বাংলা কন্টেন্ট রাইটার হিসেবে চাকরি করতে পারবেন তেমনি নিজের একটি ওয়েবসাইট তৈরি করে সেখানেও কন্টেন্ট রাইটিংয়ের কাজ করে গুগল অ্যাডসেন্সের মাধ্যমে প্রতি মাসে একটি হ্যান্ডসাম অ্যামাউন্টের অর্থ উপার্জন করতে পারবেন।

টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইটঃ বিল্যান্সার ডটকম (belancer.com)

বিল্যান্সার ডটকম টাকা আয় করার বাংলাদেশী ওয়েবসাইট। যারা সাধারণত ফ্রিল্যান্সিং সেক্টরের বিভিন্ন কাজে দক্ষতা অর্জন করেছে কিন্তু প্রতিযোগিতায় টিকে বিভিন্ন ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসে কাজ খুঁজে পাচ্ছেন না তারা মূলত বিল্যান্সার ডটকম নামক এই ওয়েবসাইটে বিভিন্ন ধরনের ফ্রিল্যান্সিং কাজ করে সহজেই টাকা আয় করতে পারবেন। এই ওয়েবসাইটে কি ধরনের কাজ করে ইনকাম করতে পারবেন সেই প্রসঙ্গের ব্যাখ্যা নিম্নে উল্লেখ করা হলোঃ

  • ওয়েব ডিজাইন অ্যান্ড ডেভলপমেন্ট।
  • গ্রাফিক্স ডিজাইন।
  • ডিজিটাল মার্কেটিং।
  • বাংলা কনটেন্ট রাইটিং।
  • সিপিএ মার্কেটিং।
  • ডাটা এন্ট্রি।
  • এসইও।
  • কাস্টমার সাপোর্ট ইত্যাদি।

এই সমস্ত কাজগুলো করার জন্য আপনি যেকোনো একটি সেক্টরকে বেছে নিলে সবচেয়ে ভালো ভাবে কাজ করতে এবং অধিক পরিমাণে অর্থ উপার্জন করতে সক্ষম হবেন। এর জন্য প্রথম অবস্থায় আপনি যেই সেক্টরেটিকে বেছে নিতে চাচ্ছেন সেই সেক্টরে কাজ করার দক্ষতা আপনাকে অর্জন করতে হবে এবং স্কিল বা দক্ষতা অর্জন করার পর আপনি খুব সহজেই বিল্যান্সার ডটকম নামক এই ওয়েবসাইটের ফ্রিল্যান্সিং কাজগুলো করে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। 

আর পেমেন্ট নেওয়ার সময় বিকাশ, নগদ কিংবা পেপালের মাধ্যমে পেমেন্ট নিতে পারবেন।এছাড়াও এই ওয়েবসাইটে কাজ করার একটি প্রধান সুবিধা হলো যারা ইংরেজিতে ভালোভাবে দক্ষ না হওয়ার কারণে ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস গুলোতে কাজ পাচ্ছেন না তারাও এই ওয়েবসাইটে মোটামুটি ইংরেজি জেনে কাজ করতে পারবেন।

লিঙ্কঃ বিল্যান্সার ডট কম

অনলাইনে ইনকাম করার ওয়েবসাইটঃ ইনবক্সডলার্স ডটকম (Inboxdollars.com)

টাকা আয় করার ওয়েবসাইট গুলোর মধ্যে ইনবক্সডলার্স ডটকম অত্যন্ত মজার এবং চমৎকার একটি ওয়েবসাইট।কেননা এই ওয়েবসাইটে আপনি আপনার স্মার্টফোনের মাধ্যমে কতগুলো সহজ কাজ করার মাধ্যমে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। সেজন্য এই ওয়েবসাইটে কাজ শুরু করার পূর্বে এই ওয়েবসাইটে আপনার রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন করতে হবে। আর সব থেকে মজার বিষয় হলো এই ওয়েবসাইটে রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন করার পরপরই আপনার একাউন্টে ৫ ডলার যোগ হয়ে যাবে। 

এটা মূলত ওয়েবসাইট কর্তৃপক্ষ থেকে আপনার রেজিস্ট্রেশন এর জন্য বোনাস হিসেবে দেওয়া হয়। কিন্তু এই ওয়েবসাইটে কাজ করার ক্ষেত্রে একটি অসুবিধা হলো এই ওয়েবসাইটে আপনি বাংলাদেশ থেকে ঢুকতে পারবেন না। এর জন্য মূলত কাজ করার পূর্বে আপনার পিসি কিংবা স্মার্টফোনের ব্রাউজারে ভিপিএন কানেক্ট করে নিতে হবে। আর ভিপিএন কানেক্ট করার পর আপনি অনায়াসে কাজ করতে পারবেন। 

আরো পড়ুনঃ বাংলাদেশ থেকে অনলাইনে আয় করার সেরা ৫ টি উপায় সসম্পর্কে জেনে নিন ।। Online income bd

আপনাদের সুবিধার্থে আমরা নিচে ল্যাপটপের জন্য গুগল ক্রোম ভিপিএন এক্সটেনশন ডাউনলোড লিঙ্ক এবং স্মার্টফোনের জন্য ভিপিএন ডাউনলোড লিঙ্ক দিয়ে দিয়েছি। উক্ত ভিপিএন গুলো ডাউনলোড করে কানেক্ট করার পর আপনি আপনার ব্রাউজারে “Inboxdollars.com” লিখে সার্চ দিলেই আপনার সামনে এই ওয়েবসাইটটি চলে আসবে। এবার চলুন জেনে নেওয়া যাক এই ওয়েবসাইটে মূলত কি ধরনের কাজ করে আপনি ইনকাম করতে পারবেন।

  • বিভিন্ন ধরনের অ্যাড দেখে ।
  • গেম খেলে।
  • বিভিন্ন সার্ভে সম্পন্ন করার মাধ্যমে।
  • কেনাকাটা করার মাধ্যমে।
  • বিভিন্ন অফার পূরণ করার মাধ্যমে।

এই সমস্ত কাজ গুলো করার পর আপনার একাউন্টে ন্যূনতম ৩০ ডলার পর্যন্ত জমা হলেই আপনি আপনার পেমেন্ট পেপাল কিংবা বিভিন্ন ধরনের গিফট কার্ডের মাধ্যমে সহজে উত্তোলন করতে পারবেন। কিন্তু যদি আপনার একাউন্টে ৩০ ডলারের কম অ্যামাউন্ট জমা হয় সেক্ষেত্রে আপনি টাকা উইথড্র করতে পারবে না। তাই সব সময় চেষ্টা করবেন ন্যূনতম ৩০ ডলার পর্যন্ত আয় করে টাকা উইথড্র করার।

লিঙ্কঃ  ভিপিএন (ল্যাপটপ) (মোবাইল)

টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইটঃ সুয়্যাগবাক (swagbuck.com)

সুয়্যাগবাক ওয়েবসাইটে কাজ করার ধরন এবং পেমেন্ট নেওয়ার সিস্টেম অনেকটা ইনবক্সডলার্স ওয়েবসাইটের মত। কেননা সুয়্যাগবাক ওয়েবসাইটে কাজ করার জন্য ইনবক্সডলার্স ডটকম ওয়েবসাইটের মত প্রথমেই ওয়েবসাইটে একাউন্ট খুলতে হয় এবং একাউন্ট খোলার সঙ্গে সঙ্গে বোনাস হিসেবে ৫ ডলার একাউন্টে যোগ হয়ে যায়। 

তবে ইনবক্সডলার্স ডটকম ওয়েবসাইটের থেকে এই ওয়েবসাইটে কাজ করার একটি বড় সুবিধা হলো এই ওয়েবসাইটে ন্যূনতম ৩ ডলার পর্যন্ত একাউন্টে জমা হলেই একাউন্ট থেকে পেমেন্ট উইথড্র করা যায়। আর আপনি আপনার পেমেন্ট পেপাল কিংবা আমাজন গিফট কার্ডের মাধ্যমে উইথড্র করতে পারবেন। আর এই ওয়েবসাইটের কাজের ধরন গুলো হলোঃ

  • গেম খেলার মাধ্যমে ইনকাম করা।
  • সার্ভে করার মাধ্যমে ইনকাম করা।
  • কেনাকাটা করার মাধ্যমে ইনকাম করা।
  • বিভিন্ন ভিডিও দেখার মাধ্যমে ইনকাম করা।
  • ভিডিওর মধ্যে থাকা কিংবা গেম খেলার সময় সামনে আসা বিভিন্ন অ্যাড দেখার মাধ্যমে ইনকাম করা।
  • অনলাইন অনুসন্ধান করার মাধ্যমে ইনকাম করা।

আপনি যখন সুয়্যাগবাক ওয়েবসাইটে একাউন্ট খুলে এই সমস্ত কাজগুলো করবেন তখন প্রতিবার কাজ করা শেষ হলে আপনার একাউন্টে পয়েন্ট জমা হতে থাকবে এবং পরবর্তীতে এই পয়েন্টগুলো আপনি ডলারে কনভার্ট করে ডলার উইথড্র করে নিতে পারবেন।

লিঙ্কঃ সুয়্যাগবাক

অনলাইনে কাজ করার ওয়েবসাইটঃ আপওয়ার্ক ডটকম (upwork.com)

আপওয়ার্ক ডটকম হলো অত্যন্ত জনপ্রিয় একটি ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট। আপনাদের মধ্যে যারা ফ্রিল্যান্সার আছেন তারা নিশ্চয়ই আপওয়ার্ক ওয়েবসাইটের নাম শুনেছেন। আপওয়ার্ক ওয়েবসাইটের ফ্রিল্যান্সিং কাজ করার মাধ্যমে প্রচুর পরিমাণে অর্থ উপার্জন করা সম্ভব। কিন্তু এক্ষেত্রে অর্থ উপার্জন করার জন্য আপনাকে অবশ্যই এই ওয়েবসাইটের ফ্রিল্যান্সিং সেক্টরের কাজগুলোর মধ্যে যেকোনো একটি বা একাধিক কাজের প্রতি দক্ষ হতে হবে। যদি আপনার এই সেক্টরের কাজগুলোর দক্ষতা না থাকে তাহলে আপনি এখান থেকে কাজ করে সফল হতে পারবেন না। 

কেননা এই ওয়েবসাইটে এমন অনেক ফ্রিল্যান্সার রয়েছে যাদের কাজের মান এবং দক্ষতা অনেক উচ্চ পর্যায়ের। আর এমন ফ্রিল্যান্সারদের মধ্যে প্রতিযোগিতায় টিকে থাকার জন্য আপনাকেও তাদের পর্যায়ের দক্ষতা অর্জন করে কাজে নামতে হবে। তাই আপনি যদি এই ওয়েবসাইটে কাজ করতে চান তাহলে আমরা আপনাকে পরামর্শ দিব যে, আপনি অবশ্যই এই সেক্টরের কাজগুলোতে দক্ষতা অর্জন করার পর কাজ শুরু করবেন। আপওয়ার্ক ওয়েবসাইটের আপনি যে ধরনের কাজ করতে পারবেন। আর এই কাজগুলো হলোঃ

  • ডিজিটাল মার্কেটিং।
  • ইংরেজি কনটেন্ট রাইটিং।
  • ওয়েব ডিজাইন।
  • ওয়েব ডেভেলপমেন্ট।
  • গ্রাফিক্স ডিজাইন।
  • এসইও ইত্যাদি।

যেহেতু আপওয়ার্ক ওয়েবসাইট অত্যন্ত ট্রাস্টেড এবং জনপ্রিয় একটি ওয়েবসাইট তাই এই ওয়েবসাইটে কাজ করার পর আপনাকে আপনার পেমেন্ট নিয়ে চিন্তা করতে হবে না। কাজ করার পর আপনি অবশ্যই পেমেন্ট পেয়ে যাবেন।

লিঙ্কঃ আপওয়ার্ক ডটকম

অনলাইন ইনকাম ওয়েবসাইটঃ ফাইভার ডটকম (Fiverr.com)

টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট গুলোর মধ্যে ফাইভার ডটকম অন্যতম একটি ওয়েবসাইট। আপনার যদি অ্যানিমেশন সেক্টরে কাজ করার অভিজ্ঞতা থেকে থাকে বা দক্ষতা থেকে থাকে তবে আপনি এই ওয়েবসাইটে কাজ করার মাধ্যমে ইনকাম করতে পারবেন। বর্তমানে অ্যানিমেশন সেক্টরের কাজগুলোর প্রচুর পরিমাণে চাহিদা রয়েছে। তাই বিভিন্ন দেশি-বিদেশি ক্লায়েন্টরা এই ধরনের কাজগুলো ফাইভার ডটকম ওয়েবসাইটের মাধ্যমে বিভিন্ন ফ্রিল্যান্সারদের দিয়ে করিয়ে থাকে। আর এই সাইটে কাজ করার পর আপনাকে আমেরিকান ডলারের মাধ্যমে পেমেন্ট করা হবে। 

আরো পড়ুনঃ ডিজিটাল মার্কেটিং কি এবং ডিজিটাল মার্কেটিং কেন করব

তাই কাজ করার পূর্বে অবশ্যই আপনার পেপাল একাউন্ট থাকতে হবে। তবেই আপনি কাজ করার বিনিময়ে পেমেন্ট পাওয়ার পর পেমেন্ট উইথড্র করতে পারবেন। এছাড়াও এ সাইটে কাজ করার জন্য প্রথম অবস্থায় আপনাকে এই ওয়েবসাইটের মধ্যে আপনার একটি একাউন্ট ক্রিয়েট করতে হবে যেটার মধ্যে আপনার বিস্তারিত তথ্যাদি অবশ্যই উল্লেখ করতে হবে। যাতে করে ক্লায়েন্টরা যখন তাদের কাজ করানোর জন্য ফ্রিল্যান্সারদের খোঁজ করবে তখন আপনার একাউন্টে উল্লেখিত তথ্যগুলোর সাহায্যে ক্লায়েন্টরা আপনার সঙ্গে সহজেই যোগাযোগ করতে সক্ষম হয়।

লিঙ্কঃ ফাইভার ডটকম

অনলাইনে আয় করার ওয়েবসাইটঃ নিওবাক্স ডটকম (NeoBux.com)

আপনি যদি অনেক মজার মজার কাজ করার মাধ্যমে খুব সহজে ইনকাম করার পথ খুঁজে থাকেন তাহলে নিওবাক্স ডটকম নামক এই ওয়েবসাইটটি আপনার জন্য উপযুক্ত। কারণ এই ওয়েবসাইটে অত্যন্ত সহজ এবং মজার কাজ করার মাধ্যমে ইনকাম করা সম্ভব। আর কাজ করার পর পেমেন্ট নেওয়ার মাধ্যম হিসেবে আপনি পেপাল কিংবা ব্যাংক একাউন্টের মাধ্যমেও পেমেন্ট দিতে পারবেন। তাহলে চলুন জেনে নেই এই ওয়েবসাইটে মূলত কি ধরনের কাজ করে ইনকাম করা যায়।

  • বিভিন্ন অ্যাড দেখার মাধ্যমে টাকা ইনকাম করা। 
  • গেম খেলার মাধ্যমে ইনকাম করা।
  • এই ওয়েবসাইটে কাজ করার জন্য বন্ধুদেরকে রেফার করার মাধ্যমে ইনকাম করা।
  • ভিডিও দেখার মাধ্যমে ইনকাম করা।
  • সার্ভে করার মাধ্যমে ইনকাম করা ইত্যাদি।

লিঙ্কঃ নিওবাক্স ডটকম

অনলাইনে কাজ করার ওয়েবসাইটঃ সাটারস্টক ডটকম (Shutterstock.com)

সাটারস্টক ডকম হলো ফটোগ্রাফির মাধ্যমে ইনকাম করার ক্ষেত্রে একটি বহুল প্রচলিত এবং জনপ্রিয় ওয়েবসাইট। এই ওয়েবসাইটে আপনি আপনার তোলা ছবিগুলো আপলোড দেওয়ার মাধ্যমে খুব সহজেই অল্প সময়ের মধ্যেই ইনকাম করতে পারবেন। আর এখানে কাজ করে ইনকাম করা বেশ লাভজনকও বটে। এই ওয়েবসাইটে আপনার আপলোডকৃত ফটোগুলো যখন ওয়েবসাইটের ভিউয়াররা ডাউনলোড করবে তখন প্রতিটি ডাউনলোডের জন্য আপনার ছবিগুলো স্টক পাবে। 

আর স্টক পাওয়ার উপর ভিত্তি করে আপনি এই ওয়েবসাইটটিতে রয়্যালিটি পাবেন এবং অর্থ উপার্জন করতে পারবেন। তবে এই ওয়েবসাইটে যেহুতু আমেরিকান ডলারের মাধ্যমে পেমেন্ট করা হয়। তাই এই ওয়েবসাইটে কাজ করে পেমেন্ট নেওয়ার জন্য আপনার অবশ্যই একটি আমেরিকান ডলারের একাউন্ট থাকতে হবে। অন্যথায় আপনি এই ওয়েবসাইটে কাজ করে ইনকাম করার পরেও টাকা উইথড্র করতে পারবেন না।

লিঙ্কঃ সাটারস্টক ডটকম

টাকা আয় করার ওয়েবসাইটঃ ওয়াইসেন্স ডটকম (YSense.com)

অনলাইন ইনকাম সাইট হিসেবে ওয়াইসেন্স ডটকম হলো একটি নির্ভরযোগ্য সার্ভে ভিত্তিক কাজের ওয়েবসাইট। তবে এই ওয়েবসাইটে প্রধানত সার্ভে ভিত্তিক কাজ করা হলেও এর পাশাপাশি আরো কতগুলো কাজ করে দ্রুত ইনকাম করা যায়। এই ওয়েবসাইটে কাজ করার জন্য প্রথমেই আপনাকে এই ওয়েবসাইটে আপনার একটি একাউন্ট ক্রিয়েট করে নিতে হবে। আর একাউন্ট ক্রিয়েট করার জন্য প্রয়োজন হবে আপনার ইমেইল আইডি এবং একটি শক্তিশালী পাসওয়ার্ডের। 

এই দুইটি জিনিসের মাধ্যমে আপনি উক্ত ওয়েবসাইটে একাউন্ট ক্রিয়েট করার পর ওয়েবসাইটের মধ্যে সার্ভে অপশনে ক্লিক করলে আপনার সামনে একের পর এক সার্ভের কাজগুলো চলে আসবে আসবে। তারপর এই সার্ভের কাজগুলো সম্পন্ন করার পর আপনি পেপাল, স্ক্রিল অথবা অ্যামাজন প্রাইম এর মাধ্যমে পেমেন্ট নিতে পারবেন। তবে এই সাইটের সার্ভের কাজ গুলো যেহেতু ইংরেজিতে করা হয় তাই এই সাইটে কাজ করার পূর্বে আপনাকে অবশ্যই ইংরেজিতে মোটামুটি ভাবে দক্ষ হতে হবে। 

তবেই আপনি এই সাইটে কাজ করে ভালো এমাউন্টের টাকা ইনকাম করতে পারবেন। ওয়াইসেন্স ডটকম ওয়েবসাইটের সম্পর্কে আলোচনা শুরুতেই আমরা বলেছিলাম যে, এই ওয়েবসাইটে সার্ভে ছাড়াও আরো কতগুলো কাজ করে ইনকাম করা যায়। আর ইনকাম করার এই পদ্ধতি গুলো হলোঃ

  • সিপিএ মার্কেটিং বা অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিংয়ের মাধ্যমে ইনকাম করা।
  • বন্ধুদের রেফার করে ইনকাম করা।
  • বিভিন্ন অফারের মাধ্যমে ইনকাম করা।

লিঙ্কঃ ওয়াইসেন্স ডটকম

অনলাইনে ইনকাম করার ওয়েবসাইটঃ মাইক্রোওয়ার্কারস ডটকম (Microworkers.com)

প্রযুক্তিনির্ভর এই যুগে বিভিন্ন প্রযুক্তি ভিত্তিক কাজ করার মাধ্যমে ইনকাম করার জন্য একটি সেরা ওয়েবসাইট এর নাম হলো মাইক্রোওয়ার্কারস ডটকম। বর্তমানে পৃথিবীর প্রায় ২ মিলিয়নেরও বেশি মানুষ এই ওয়েবসাইটে কাজ করার মাধ্যমে দৈনিক ইনকাম করছে। আর এই ওয়েবসাইটের একটি বিশেষত্ব হলো আপনি যেমন এই ওয়েবসাইটে একজন ওয়ার্কার হিসেবে কাজ করতে পারবেন তেমনি আপনার নিজের কাজগুলোকেও এই ওয়েবসাইটের বিভিন্ন ওয়ার্কার এর মাধ্যমে সম্পন্ন করিয়ে নিতে পারবেন। 

আপনি যখন এই ওয়েবসাইটে ওয়ার্কার হিসেবে কাজ করবেন তখন এই ওয়েবসাইটের নিদৃষ্ট কাজগুলোর উপর আপনাকে দক্ষতা অর্জন করতে হবে। অন্যথায় আপনি কাজ করে খুব বেশি সফল হতে পারবেন না। কেননা বর্তমানের প্রতিযোগিতামূলক পৃথিবীতে আপনি যেই সেক্টরেই কাজ করতে চান না কেন সব সেক্টরেই মূলত দক্ষ মানুষ চাই। তাই আপনি কাজ শুরু করার আগে অবশ্যই নিজেকে দক্ষ করে নিবেন। 

এর জন্য আপনি চাইলে বিভিন্ন অনলাইন ভিত্তিক ভিডিও দেখার মাধ্যমে ও দক্ষতা অর্জন করতে পারবেন। এবার চলুন এই ওয়েবসাইটে মূলত কি ধরনের কাজ করার বিনিময়ে ইনকাম করা যায় সেগুলো জেনে নেই।

  • বিভিন্ন ধরনের অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ ইন্সটল করার মাধ্যমে ইনকাম করা।
  • ফেসবুক একাউন্ট খোলার মাধ্যমে ইনকাম করা।
  • ইউটিউব একাউন্ট খোলার মাধ্যমে ইনকাম করা।
  • জিমেইল একাউন্ট তৈরি করে দেওয়ার মাধ্যমে ইনকাম করা।
  • বিভিন্ন অনলাইন প্লাটফর্মে রেটিং দেওয়ার মাধ্যমে ইনকাম করা ইত্যাদি।

উপরোক্ত কাজগুলো সম্পাদন করার পর পেমেন্ট নেওয়ার ক্ষেত্রে মাধ্যম হিসেবে আপনি পেপাল, স্ক্রিল অথবা ব্যাংক ট্রান্সফারের মাধ্যমকে ব্যবহার করতে পারবেন।

লিঙ্কঃ মাইক্রোওয়ার্কারস ডটকম

অনলাইন ইনকাম ওয়েবসাইটঃ ফ্রিল্যান্সার ডটকম (freelancer.com)

ফ্রিল্যান্সার ডটকম হলো মূলত একটি ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট যেখানে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে ফ্রিল্যান্সাররা তাদের দক্ষতা অনুযায়ী বিভিন্ন ক্যাটাগরির ফ্রিল্যান্সিং কাজ করে অর্থ উপার্জন করে থাকে। এই ওয়েবসাইটে প্রধানত বিভিন্ন ক্লায়েন্ট তাদের কাঙ্খিত কাজের বর্ণনা দিয়ে পোস্ট করে থাকে এবং সেই পোস্টের মাধ্যমে বিভিন্ন ফ্রিল্যান্সাররা উক্ত ক্লায়েন্টদের সঙ্গে যোগাযোগ করে কাজ সংগ্রহ করে থাকে। আর কাজ করার পর এখানে মেইনলি আমেরিকান ডলারে পেমেন্ট দেওয়া হয়। 

তাই এই সাইটে কাজ করার জন্য আপনার অবশ্যই পেপাল একাউন্ট থাকতে হবে। এই ওয়েবসাইটের কাজের ধরন গুলো অন্যান্য ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইটের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ। আর এখানেও মূলত দক্ষ ফ্রিল্যান্সাররা কাজ করে থাকে। সেজন্য আপনি যদি এই ওয়েবসাইটে কাজ করতে চান তবে এই ওয়েবসাইটের কাজের ক্যাটাগরি গুলোর উপর আপনার দক্ষতা থাকা আবশ্যক। এবারে ফ্রিল্যান্সার ডটকম ওয়েবসাইটে কি ধরনের কাজ করে ইনকাম করা সম্ভব সেই বিষয়ে আপনাদের সামনে তুলে ধরবো।

  • ইংরেজি কনটেন্ট রাইটিং এর মাধ্যমে ইনকাম করা যায়।
  • ওয়েবসাইটের এসইও করার মাধ্যমে ইনকাম করা যায়।
  • ওয়েব ডিজাইনের কাজ করার মাধ্যমে ইনকাম করা যায়।
  • ওয়েব ডেভেলপমেন্টর কাজ করার মাধ্যমে ইনকাম করা যায়।
  • গ্রাফিক্স ডিজাইনের কাজ করার মাধ্যমে ইনকাম করা যায়।
  • ডিজিটাল মার্কেটিং এর কাজ করার মাধ্যমে ইনকাম করা যায়।

লিঙ্কঃ ফ্রিল্যান্সার ডটকম 

টাকা আয় করার বাংলাদেশী ওয়েবসাইটঃ ডিল্যান্সার ডটকম (Dealancer.com)

সাধারণত বাংলাদেশের মানুষ অনলাইন ইনকাম সাইট গুলোর মধ্যে টাকা আয় করার বাংলাদেশি ওয়েবসাইট গুলোর খোঁজ বা অনুসন্ধান বেশি করে থাকে। আর এই রকম বাংলাদেশী নাগরিকদের অনুসন্ধানের চাহিদা অনুযায়ী টাকা আয় করার একটি বাংলাদেশী ওয়েবসাইটের নাম হলো ডিল্যান্সার ডটকম। এই ওয়েবসাইটের কাজের ধরন গুলো অনেকটা আপওয়ার্ক এবং ফাইভার ডটকম ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইটের মত। 

তবে অন্যান্য ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট যেমন সারা বিশ্বের বিভিন্ন দেশের ক্লায়েন্টরা তাদের চাহিদা অনুযায়ী কাজ ফ্রিল্যান্সারদের দিয়ে করিয়ে নেয় এই ওয়েবসাইটে এমনটা হয়না। এটা যেহেতু একটি বাংলাদেশী ওয়েবসাইট তাই এখানে অন্যান্য ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইটের মত সব কাজ করা হলেও এখানকার ক্লায়েন্টরা মূলত বাংলাদেশি হয়ে থাকে। তাই এই ওয়েবসাইটে কাজ করার ক্ষেত্রে আপনার সবচেয়ে বড় বেনিফিট হলো আপনি ইংরেজিতে দক্ষ না হলেও এই ওয়েবসাইটে কাজ করতে পারবেন এবং বাংলাদেশের ক্লায়েন্টের সঙ্গে বাংলায় কমিউনিকেশন করতে পারবেন। 

এছাড়াও এই ওয়েবসাইটে পেমেন্ট নেওয়ার সিস্টেম হলো বিকাশ, নগদ, রকেট সহ যেকোনো বাংলাদেশি পেমেন্ট মাধ্যম। আপনি যদি ডিল্যান্সার ডটকম ওয়েবসাইটে কাজ করে ইনকাম করতে চান তবে প্রথমেই এই ওয়েবসাইটে আপনার একটি একাউন্ট খুলতে হবে এবং আপনি কি ধরনের কাজ করতে চাচ্ছেন এবং কাজের পেমেন্ট কত নিবেন সেই সম্পর্কিত বিস্তারিত তথ্য দিয়ে একটি গিগ পাবলিশ করতে হবে। 

আর গিগ পাবলিশ করার পর বাংলাদেশ ক্লায়েন্টরা তাদের চাহিদা অনুযায়ী আপনার থেকে কাজ করিয়ে নেবে এবং তার বিনিময় আপনাকে পে করবে। ডিল্যান্সার ডটকম ওয়েবসাইটে যেসব কাজ করার মাধ্যমে ইনকাম করা যায় সেগুলো হলোঃ

  • ওয়েবসাইটের সাইট স্পিড অপটিমাইজেশন।
  • ফেসবুক একাউন্ট এর সার্ভিসিং বা ফেসবুক পেজের সার্ভিসিং।
  • ইউটিউব একাউন্ট এর সার্ভিসিং।
  • ওয়েবসাইটের এসইও।
  • কনটেন্ট রাইটিং।
  • ওয়েব ডিজাইন।
  • ওয়েব ডেভেলপমেন্ট।
  • গ্রাফিক্স ডিজাইন।
  • ডিজিটাল মার্কেটিং ইত্যাদি।

লিঙ্কঃ ডিল্যান্সার ডটকম

টাকা কামানোর ওয়েবসাইটঃ গুগল অ্যাডসেন্স (Google Adsense)

বর্তমান সময়ের পরিপ্রেক্ষিতে ঘরে বসে সবচেয়ে সহজ উপায়ে ইনকাম করার ক্ষেত্রে অন্যতম উপায় হলো গুগল অ্যাডসেন্স এর মাধ্যমে ইনকাম করা। আপনার যদি কোন ব্যক্তিগত ব্লগার ওয়েবসাইট, ওয়ার্ডপ্রেস ওয়েবসাইট কিংবা ইউটিউব চ্যানেল থেকে থাকে তবে আপনি সম্পূর্ণ বিনামূল্যে গুগল অ্যাডসেন্স এর জন্য এপ্লাই করতে পারবেন এবং আপনার অ্যাপ্লিকেশন অ্যাপ্রুভ হওয়ার পর গুগল অ্যাডসেন্স এর একাউন্ট থেকে বিভিন্ন  অ্যাডের কোড গুলো নিয়ে আপনি আপনার ব্লগার ওয়েবসাইট, ওয়ার্ডপ্রেস ওয়েবসাইট কিংবা ইউটিউব চ্যানেলের ভিডিও গুলোর মধ্যে বসিয়ে অ্যাড ভিউ হওয়ার উপর ভিত্তি করে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। 

এর জন্য আপনার ওয়েবসাইটের বা ইউটিউব চ্যানেলের মধ্যে গুগল অ্যাডসেন্সের অ্যাড যত বেশি ভিউ হবে আপনি তত বেশি টাকা উপার্জন করতে পারবেন। আর গুগল অ্যাডসেন্স একাউন্ট থেকে ইনকাম করার ক্ষেত্রে সবথেকে মজার বিষয় হলো আপনি সর্বোচ্চ ১০০০ টি ওয়েবসাইটে শুধুমাত্র ১টি গুগল অ্যাডসেন্স একাউন্টের অ্যাড দেখিয়ে ইনকাম করতে পারবেন। অর্থাৎ, আপনার যত বেশি ওয়েবসাইট থাকবে এবং যত বেশি ওয়েবসাইটে আপনি গুগল অ্যাডসেন্স অ্যাড দেখাতে পারবেন ততবেশি আপনার ইনকাম হবে।

লিঙ্কঃ গুগল অ্যাডসেন্স

টাকা কামানোর ওয়েবসাইটঃ ডিজিটাল মার্কেট (Digital Market)

যারা ডিজিটাল মার্কেটিং সেক্টরের কাজগুলোতে এক্সপার্ট তারা ডিজিটাল মার্কেট নামক এই ওয়েবসাইটে বিভিন্ন ডিজিটাল মার্কেটিং রিলেটেড কাজ সম্পাদন করার মাধ্যমে খুব সহজেই টাকা ইনকাম করতে পারবেন। আর তাই আমরা চেয়েছি টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট গুলোর মধ্যে ডিজিটাল মার্কেট নামক এই ওয়েবসাইটের কথা উল্লেখ করে আপনাদেরকে এ ওয়েবসাইটের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দিতে। 

আপনি এখানে কোন প্রকার তৃতীয় পক্ষের বা কোন প্রকার মধ্যস্থতাকারীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই সরাসরি ক্লায়েন্টের সঙ্গে যোগাযোগ করে কাজ সম্পাদন করতে পারবেন। এই ওয়েবসাইটে যে ধরনের কাজ করা হয় সেগুলো হলোঃ

  • ফেসবুক মার্কেটিং।
  • ইউটিউব মার্কেটিং।
  • অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং।
  • অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং।
  • এসইও।
  • কনটেন্ট রাইটিং ইত্যাদি।

লিঙ্কঃ ডিজিটাল মার্কেট 

টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট বাংলাদেশঃ ক্যাপিটাল আপওয়ার্ক ডটকম (capital upwork.com)

টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট গুলোর মধ্যে একটি জনপ্রিয় বাংলাদেশী ওয়েবসাইটের নাম হলো ক্যাপিটাল আপওয়ার্ক ডটকম। এই ওয়েবসাইটে কাজ করার সবথেকে বড় সুবিধা হচ্ছে কোনোরকম পূর্বের অভিজ্ঞতা ছাড়াই বা কোনরকম কাজের দক্ষতা ছাড়াই আপনি এই ওয়েবসাইটে কাজ করার মাধ্যমে প্রতিদিন অনেক টাকা ইনকাম করতে পারবেন। আর সেইসঙ্গে এই ওয়েবসাইটে কাজ করার জন্য আপনার ল্যাপটপ কিংবা ডেস্কটপ থাকার প্রয়োজন নেই। 

আপনি চাইলে আপনার স্মার্টফোনের সাহায্যেই এই ওয়েবসাইটে কাজ করতে পারবে। এই ওয়েবসাইটে কাজ করার জন্য প্রথমে এই ওয়েবসাইটের মধ্যে গিয়ে রেজিস্ট্রেশন অপশনে ক্লিক করে আপনার রেজিস্ট্রেশন কমপ্লিট করতে হবে এবং রেজিস্ট্রেশন করার সময় যখন আপনি আপনার ব্যক্তিগত তথ্য গুলো দিবেন তখন অবশ্যই খেয়াল রাখবেন যাতে তথ্যগুলো নির্ভুল এবং সত্য হয়। এই ওয়েবসাইটে যে সমস্ত কাজ করার মাধ্যমে টাকা ইনকাম করতে পারবেন সেগুলো হলোঃ

  • এড ক্লিক করে।
  • প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার মাধ্যমে।
  • বিভিন্ন অ্যাসাইনমেন্ট কমপ্লিট করে।
  • কমেন্ট করার মাধ্যমে।
  • বিভিন্ন কম্পিউটার প্রোগ্রাম রিলেটেড কাজ সম্পাদন করার মাধ্যমে।
  • ফেসবুক একাউন্ট রিলেটেড কাজ করার মাধ্যমে।
  • জিমেইল অ্যাকাউন্ট তৈরি করার মাধ্যমে।
  • বিভিন্ন মোবাইল এপ্লিকেশন রিলেটেড কাজ করার মাধ্যমে।
  • অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া রিলেটেড কাজ করার মাধ্যমে।

এছাড়াও এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে যেমন আপনি নিজে অন্যের দেয়া কাজ করে অর্থ উপার্জন করতে পারবেন তেমনি আপনি এখানে নিজের কাজ গুলোকেও অন্যদের দিয়ে করিয়ে নিতে পারবেন। আর পেমেন্ট নেওয়ার ক্ষেত্রে বাংলাদেশের যে কোন ডিজিটাল পেমেন্ট সিস্টেম যেমন- নগদ, বিকাশ, রকেট ইত্যাদির মাধ্যমে পেমেন্ট নিতে পারবেন। তবে পেমেন্ট নেওয়ার জন্য আপনার একাউন্টে সর্বনিম্ন ৪ ডলার পরিমাণ অ্যামাউন্ট জমা হতে হবে তবেই আপনি পেমেন্ট উইথড্র করতে পারবে।

লিঙ্কঃ ক্যাপিটাল আপওয়ার্ক ডটকম

অনলাইন থেকে আনলিমিটেড টাকা ইনকাম করার সহজ উপায় বাংলাদেশে: শেষ কথা

প্রিয় পাঠক আজকে আমরা আমাদের এই পোস্টের মধ্যে টাকা ইনকাম করার বেশ কতগুলো ট্রাস্টেড ওয়েবসাইটের বিস্তারিত বর্ণনা উল্লেখ করেছি। আশা করছি আমাদের এই পোস্টটি পড়ার মাধ্যমে আপনি উপকৃত হয়েছেন এবং এখন আপনি খুব সহজেই এই পোস্টে উল্লেখিত টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট গুলোর মাধ্যমে আপনার অনলাইনে টাকা ইনকাম করার যাত্রা শুরু করতে সক্ষম হবেন। আপনার অনলাইন ইনকামের যাত্রা শুভ হোক এই কামনা করে আমাদের আজকের আলোচনার তাহলে এখানেই শেষ করছি। ভালো থাকবেন, সুস্থ থাকবেন। ধন্যবাদ।

Leave a Comment