অনলাইন ইনকাম মোবাইল দিয়ে [year]। Online income bd

বর্তমানে মোবাইল নামক এই ডিভাইস টি আমাদের সকলের কাছে আছে। আর আমরা চাই যে অনলাইন ইনকাম মোবাইল দিয়ে করতে  আসলে আমাদের হতে থাকা স্মার্টফোনটিকে কাজে লাগিয়ে আপনারা সঠিক কিছু গাইডলাইন ফলো করলে আপনিও মাস শেষে শত শত ডলার মোবাইল দিয়ে ইনকাম করতে পারেন।

তার আগে আপনাকে জানতে হবে মোবাইল দিয়ে আয় করার উপায় সম্পর্কে। মোবাইল দিয়ে ইনকাম করার উপায় সম্পর্কে আজকে বিস্তারিত জানানোর চেষ্টা করবো। এখানে আমি আপনাদের কে মোবাইল দিয়ে আয় করার সহজ উপায় সমূহ দেখাবো। আর এই উপায় গুলো মনোযোগ দিয়ে দেখতে থাকুন এবং মোবাইল দিয়ে ইনকাম করুন।

এবং আমি আজকে আপনাদেরকে মোবাইল দিয়ে আয় করে বিকাশে টাকা নেওয়া পর্যন্ত দেখানোর চেষ্টা করবো। এখানে আপনাকে মোবাইল দিয়ে আয় অথবা মোবাইল দিয়ে ইনকাম ২০২০ ইত্যাদি বিষয় গুলো সম্পর্কে হাতে কলমে শিখানো হবে।

অনলাইন ইনকাম মোবাইল দিয়ে

অনলাইন ইনকাম মোবাইল দিয়ে

(১) ইউটিউব : মোবাইল দিয়ে ইনকাম করার সহজ উপায় হলো ইউটিউব। আপনার মোবাইল টি যদি মোটামুটি ভালো হয় এবং আপনার একটি ইন্টারনেট কানেকশন থাকে তাহলে আপনি শুরু করতে পারেন।

ইউটিউবে সফল হওয়ার টেকনিক

ইউটিউবে ভিডিও বানিয়ে ইনকাম করতে হলে আপনাকে প্রথমে ইউটিউব সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে হবে। কিভাবে ইউটিউবে সঠিক নিয়মে চ্যানেল খুলতে হয়, কিভাবে চ্যানেলকে সার্চ ইঞ্জিনে এসইও করে রেঙ্ক করাতে হয়।

এরপর আপনাকে আপনি যে বিষয়ে ভালো অভিজ্ঞতা আছে তা নিয়ে ভিডিও আপলোড শুরু করতে হবে। এর পাশাপাশি আপনাকে জানতে হবে কিভাবে ইউটিউব ভিডিও এডিট করতে হয়, কিভাবে ইউটিউবে ভিডিও এসইও করে শতশত ভিডিও কে ফেলে আপনার ভিডিও রেঙ্ক করে লক্ষ লক্ষ ভিউ আনতে হবে।

এছাড়াও আপনাকে জানতে হবে কপিরাইট কি। কিভাবে ইউটিউবে কপিরাইট থেকে মুক্ত থাকা যায়। এরপর কিভাবে এডসেন্স থেকে টাকা ইনকাম করতে হয়।

এসব বিষয়ে ভালো করে জেনে আসলে আপনার ইউটিউব কেরিয়ার অনেক ভালো হবে। আপনি ইউটিউবে সফল হতে পারবেন।

আর এসব বিষয়ে পরিপূর্ণ জ্ঞান না থাকলে আপনার ইউটিউব যাত্রা বেশিদিন দীর্ঘ হবে না।

(২) ব্লগিং : গুগল এডসেন্স থেকে টাকা ইনকাম করার সহজ উপায় হলো ব্লগিং। ব্লগিং করে আপনি প্রতি মাসে হাজার হাজার ডলার ইনকাম করতে পারেন।

ব্লগিং করার জন্য আপনাকে অবশ্যই আগে ব্লগারে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করতে হবে। এরপর আপনার সাইটে একটি টপ লেবেল ডোমেইন এড করতে হবে।  এরপর ব্লগারে নিয়মিত পোস্ট করতে হবে।

গুগল ম্যাপ কিভাবে ব্যবহার করতে হয়

মনে রাখতে হবে আপনার পোস্ট গুলো ইউনিক ও কিওয়ার্ড সমৃদ্ধ হতে হবে। এরপর আপনার ব্লগ পোস্ট গুলোকে ভালো করে এসইও করে গুগলে রেঙ্ক করাতে হবে এবং গুগল থেকে অর্গানিক ট্রাফিক আনতে হবে। এছাড়াও আপনার সাইটিকে যথেষ্ট ভালো করে এসইও করতে হবে।

এরপর নির্দিষ্ট সময়ের পর আপনি গুগল এডসেন্স এর এড বসিয়ে আপনি আয় করতে পারেন। আর এডসেন্স রিজেক্ট হলে আপনি অন্যান এড নেটওয়ার্ক এ আপনার সাইট এড করতে পারেন। তাই যারা মোবাইল দিয়ে সহজ উপায়ে অনলাইন থেকে ইনকাম করতে চান তারা চাইলে ব্লগিং শুরু করতে পারেন।

অ্যাফিলেট মার্কেটিং অনলাইন ইনকাম মোবাইল দিয়ে

অ্যাফিলেট মার্কেটিং করে মাসশেষে একটি বিশাল অংকের টাকা ইনকাম করতে পারেন।

অ্যাফিলেট মার্কেটিং কি

আ্যাফিলেট মার্কেটিং হলো কনো একটি পন্য কিংবা কোন কম্পানির সার্ভিস এর প্রচার করা এবং ঔই সেবা বা পন্য মানুষ ক্রয় কারর মাধ্যমে আপনার ইনকাম জেনারেট করা।

অ্যাফিলেট মার্কেটিং করতে কি কি লাগে

আসলে অ্যাফিলেট মার্কেটিং করতে গেলে আপনাকে তেমন কোনো রকেট সাইন্স জানতে হবে না। কারন অ্যাফিলেট করতে হলে আপনাকে শুধু মাত্র ফেসবুক, ইনিট্রাগাম ও টুইটারের মত সোস্যাল সাইটগুলোতে ভালো করে ব্রাউজ করতে শিখতে হবে। পাশাপাশি আপনার একটি ওয়েবসাইট থাকলে ভালো হবে।

কিভাবে অ্যাফিলেট মার্কেটিং করতে হয়

(১) একটি বিষয় বাচাই করুন যে বিষয়টিতে আপনি অনেক বেশি জানেন ও ভালো পোস্ট করতে পারেন।

(২) সেই বিষয়টি নিয়ে একটি সাইট অথবা ফেসবুক পেজ অথবা যাই হোক সেই প্লাটফর্মে আপনার ভালো কনটেন্ট দেওয়ার মাধ্যমে অডিয়েন্স ক্রিয়েট করুন।

(৩) আপনার পেজে আপনার ফলোয়ারদের চাহিদা মত বিভিন্ন পন্যের অ্যাফিলেট লিংক শেয়ার করুন।

অ্যাফিলেট মার্কেটিং করে কিভাবে ইনকাম হয়

আপনার লিংকে ক্লিক করে অডিয়েন্স যত বেশি পন্য কিনবে আপনার তত বেশি ইনকাম হতে থাকবে।

(৪) ইবুক : ইবুক হলো ইলেকট্রনিক বই। অর্থাৎ ইবুক হলো কাগজের বইয়ের ইলেকট্রনিক রুপ। আমরা এই ধরনের বইকে পিডিএফ বই ও বলে থাকি।

কোন বিষয়ে আপনার যথেষ্ট জ্ঞান থাকলে এবং আপনি অভিজ্ঞ হলে আপনি ইবুক লিখেও ইনকাম করতে পারেন।

ইবুক লিখতে কি কি লাগে

(১) নির্দষ্ট একটি বিষয়ে বিস্তারিত লিখার মাধ্যমে পাঠকের মনের চাহিদা পূরন করা।

(২) বই লিখার আগে আপনার বইয়ের সম্ভব্য পাঠক কারা তা ঠিক করুন। এবং আপনার কাঙ্খিত বিষয়ে যথেষ্ট জ্ঞান অর্জন করুন এবং যতটুকু সম্ভব রিচার্স করে নিন।

(৩) কিভাবে লিখলে আপনার পাঠকরা বিরক্ত হবেনা সেই বিষয়টি বুজবার চেষ্টা করুন।

(৪) এটা ও খেয়ার করতে পারেন যে এমন কোন বিষয় আছে কিনা যা মার্কেটে অনেক ভালো চাহিদা আছে কিন্তু কেউ তেমন ভালো করে লিখে নাই।

(৫) আপনার চয়েজ করা টপিক মার্কেটে কেমন চাহিদ আছে তা দেখুন।

(৬) সবশেষে ধর্য ধরে বই লিখা শেষ করুন।

ইবুক লিখে ইনকাম করার উপায়

আপনি Kindle Direct Publishing Program এ যুক্ত হোন এবং আপনার লিখা বই আমাজনে শেয়ার করুন। যতবেশি বই বিক্রি হবে তত বেশি ইনকাম হতে থাকবে।

ফেসবুক মার্কেটিং করে অনলাইন ইনকাম মোবাইল দিয়ে

ইউটিউবের মত ফেসবুকে ও এখন মনিটাইজেশন অন করা আছে। তাই ইউটিউবের জন্য বানানো ভিডিও ফেসবুকে ও আপলোড করতে পারেন। এটি মোবাইল দিয়ে ইনকাম করার সহজ উপায়। এরপর আপনার ভিডিও তে যখন নির্দষ্ট পরিমানে ভিউ ও ফলোয়ার আসবে তখন আপনি ফেসবুক বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে মনিটাইজ করে মাস শেষে ভালো ইনকাম করতে পারেন।

কপিরাইটিং করে অনলাইন ইনকাম মোবাইল দিয়ে

কপিরাইটিং কি : বিভিন্ন কম্পানি বিজ্ঞাপন প্রচার করে। বিজ্ঞাপনে এমন কিছু লিখা দরকার পড়ে যাতে মানুষ ক্লিক করে পন্য কিনে। এরকম ক্রিয়েটিভ লিখাকে কপিরাইটিং বলে।

কপিরাইটিং করে ইনকাম করার উপায়

শুরুতে আপনার ইনকাম অভিজ্ঞ কপিরাইটারদের তুলনায় কম হবে। কিন্তু আপনার লিখা ও অভিজ্ঞতা বাড়ার পাশাপাশি একসময় ইনকাম

Leave a Comment