বাংলাদেশ থেকে অনলাইনে আয় করার সেরা ৫ টি উপায় সম্পর্কে জেনে নিন ।। Online income bd

তাহলে চলুন দেরী না করে জেনে নেয়া যাক বাংলাদেশ থেকে অনলাইনে  আয় করার সেরা ৫ টি উপায় সম্পর্কে-

অনলাইনে আয় করার সেরা ৫ টি উপায়

মোবাইলের মাধ্যমে ভিডিও তৈরি করুন 

আপনি চাইলে এখন খুব সহজেই মোবাইলের মাধ্যমে একটি ইউটিউব চ্যানেল খুলতে পারবেন। ইউটিউব চ্যানেল খোলার পর আপনি মোবাইলের ক্যামেরার মাধ্যমে বিভিন্ন ধরনের ভিডিও করতে পারেন এবং তা আপনার ইউটিউব চ্যানেলে পাবলিশ করতে পারেন। এইভাবে আপনি রেগুলার করে যেতে থাকলে একসময় আপনার ইউটিউব চ্যানেল থেকে মনিটাইজেশন এর জন্য গুগোল এ এপ্লাই করতে পারবেন।

আর আপনার চ্যানেল যদি একবার মনিটাইজেশন হয়ে যায় তাহলে আর কোন  কথাই নেই। আপনি তখন আপনার চ্যানেলের ভিডিও গুলোতে অ্যাড দেখানোর মাধ্যমে আয় করতে পারবেন। আপনি যদি আপনার ভিডিও গুলোতে ভিউ আনতে পারেন তাহলে আপনি মাস গেলে ভালো পরিমাণের টাকা আয় করতে পারবেন। 

মোবাইল অ্যাপস এর মাধ্যমে অনলাইনে আয়

অনলাইন থেকে মোবাইলের মাধ্যমে যদি আয় করতে হয় তাহলে দুইভাবে করা যায়। শর্ট টাইম ইনকাম ও লং টাইম ইনকাম। অনলাইনে বিভিন্ন ধরনের অ্যাপ রয়েছে যার মাধ্যমে আপনি শর্ট টাইম ইনকাম করতে পারবেন। আপনি সাধারণত এই ক্ষেত্রে যেকোনো সার্ভে ফিল করে আপনি শর্ট টাইমে কিছু টাকা আয় করতে পারবেন। 

কিন্তু আপনি যদি লং টাইম এর জন্য প্যাসিভ ইনকাম করতে চান তাহলেও কিছু অ্যাপ আছে যেগুলো থেকে মাসে ২০ থেকে ২৫ হাজার টাকা আয় করা যায়। কিন্তু তার জন্য আপনাকে অনেক কষ্ট করতে হবে এবং আপনি এর রেজাল্ট সাথে সাথে পাবেন না।  আর এটা হচ্ছে ফুলটাইম মোবাইল থেকে ইনকাম করার ভালো একটি পন্থা। তাই আপনাদের বোঝার সুবিধার্থে নিচে আমি দুই ধরনের অ্যাপ সম্পর্কে আলোচনা করছি-

Meesho App:এই অ্যাপের মাধ্যমে আপনি নতুন প্রোডাক্ট রিসেল করার মাধ্যমে আয় করতে পারবেন। এই অ্যাপটি সম্পর্কে বিস্তারিত বলতে হলে এই অ্যাপে আপনি অনেকগুলো প্রোডাক্ট দেখতে পারবেন যেই প্রোডাক্টগুলো আপনাকে ফেসবুক, হোয়াটসঅ্যাপ, টুইটার এর মাধ্যমে শেয়ার করতে হবে।  

গুগল ম্যাপ কিভাবে ব্যবহার করতে হয়

মানে আপনি এখান থেকে কোন প্রোডাক্ট ১০০ টাকায় কিনলে আপনি ওই প্রোডাক্টটি ১৫০ টাকায় বিক্রি করতে  পারবেন।আর সাধারনত এই অ্যাপটি সম্পূর্ণ ফ্রি একটি অ্যাপ আপনি প্লে স্টোর থেকে একটি খুব সহজেই ডাউনলোড করে নিতে পারবেন। আপনি যদি প্রোডাক্ট ভালোভাবে রিসেল করতে পারেন তাহলে আপনি এই অ্যাপের মাধ্যমে মাসে ২০ থেকে ২৫ হাজার টাকা মাসে ইনকাম করতে পারবেন। 

ফটোসি গেম অ্যাপঃ সাধারণত এই ধরনের প্রচুর এ্যাপ মার্কেটে মজুদ রয়েছে এবং কিছু হয়তো আপনারা নিজেরাই জানেন। এই অ্যাপ গুলোর মাধ্যমে আপনি শর্ট টাইম কিছু ইনকাম করতে পারবেন। আর আপনি সাধারণত এখান থেকে গেম খেলার মাধ্যমে আয় করতে পারবেন। নিচে কয়েকটি অ্যাপের নাম দেওয়া হল-

১. My Team11

২. Dream 11

৩. Howzat

৪. My11circle

৫. Pro Sports11

আপনি অনলাইনে এই অ্যাপ গুলোর মাধ্যমে গেম খেলতে খেলতে আয় করতে পারবেন। তবে এখান থেকে আপনার যেটা হবে সেটা হচ্ছে শর্ট টাইম আয় আপনি এর মাধ্যমে লংটাইম আয় করতে পারবেন না। যার মাধ্যমে আপনার সাময়িক খরচ সংক্রান্ত সমস্যার সমাধান হবে।  

মোবাইল এর মাধ্যমে দীর্ঘমেয়াদী আয় 

সাধারণত বেশ কিছু উপায় রয়েছে যেগুলোর মাধ্যমে আপনি মোবাইল ব্যবহার করে অনলাইন থেকে দীর্ঘমেয়াদি আয় করতে পারবেন। সাধারণত এর মাধ্যমে আপনি লাইফটাইম আয় করতে পারবেন। সাধারণত আজকে আমি আপনাদের সাথে বলতে চলেছি এমন কয়েকটি উপায় এর কথা যার মাধ্যমে আপনি অনলাইনের মাধ্যমে বাংলাদেশ থেকে আয় করতে পারবেন-

ব্লগ থেকে আয় 

অনলাইনে সবথেকে ব্লগিং কে সম্মানজনক পেশা বলা হয়ে থাকে। আগে মানুষ শখের বশে ব্লগিং করলেও এখন কিন্তু ব্লগ থেকে ব্যাপক পরিমাণে আয় হচ্ছে। বাংলাদেশে অনেক ব্লগার আছে যারা তাদের ব্লগ থেকে এত পরিমানে আয় করছেন যা দিয়ে তারা তাদের নিজের ক্যারিয়ার সহ লাইফস্টাইল খুব ভালোভাবে চালিয়ে নিয়ে যেতে পারছে।

আপনি চাইলে মোবাইলের মাধ্যমে গুগোল ব্লগারের সাহায্যে একটি ব্লগ তৈরি করতে পারেন এবং সেখানে আপনি রেগুলার  পোস্ট করতে থাকবেন। আপনার ব্লগ টি যখন বড় হয়ে যাবে তখন আপনি আপনার ব্লগ থেকে আয়ের জন্য বিভিন্ন মাধ্যম পেয়ে যাবেন। আর ব্লগ থেকে আয় যদি একবার শুরু হয়ে যায় তাহলে এটা ক্রমাগত চলতেই থাকবে। যা আপনি সাধারণত মোবাইল ব্যবহারের মাধ্যমেও করতে পারবেন। 

ইউটিউব থেকে আয় 

অনলাইনে আয় করার সবথেকে কার্যকরী উপায় হচ্ছে মোবাইলের মাধ্যমে অনলাইন থেকে আয় করার আরেকটি জনপ্রিয় উপায় হল ইউটিউব। আপনাকে প্রথমে মোবাইলের মাধ্যমে ইউটিউব ওয়েবসাইটে গিয়ে একটি চ্যানেল ক্রিয়েট করতে হবে। তারপর আপনি যে বিষয়ে বেশি জানেন সেই বিষয় নিয়ে বিভিন্ন ধরনের টিউটোরিয়াল ভিডিও তৈরি করতে পারেন বা অন্য কোনো ধরনের ভিডিও তৈরী করে আপনি আপনার ইউটিউব চ্যানেলে পাবলিশ করতে পারেন।

এইভাবে যখন বেশ কিছু ভিডিও আপনার চ্যানেলে পাবলিশ করা হয়ে যাবে এবং আপনার সাবস্ক্রাইবার অনেক হয়ে যাবে তখন আপনি এডসেন্স এর জন্য আবেদন করতে পারেন। আপনার চ্যানেল একবার মনিটাইজেশন হয়ে গেলে তখন আপনার ভিডিও গুলোতে অ্যাড দেখানোর পাশাপাশি আপনি আয় করতে পারবেন। এটি হলো মোবাইলের মাধ্যমে অনলাইন থেকে আয় সবচেয়ে একটি কার্যকরী উপায়।

তাই অবশ্যই অনলাইন থেকে যদি ভালো পরিমাণে আয় করতে হয় তাহলে youtube-এর কথা আপনার মাথায় আনতে হবে। 

পরিশেষে, বাংলাদেশ থেকে অনলাইনে আয়ের এর অসংখ্য উপায় সৃষ্টি হয়েছে। যার বেশিরভাগই আপনি মোবাইলের মাধ্যমেই করতে পারবেন। হয়তো অনলাইনে কিছু কিছু কাজ মোবাইলের মাধ্যমে করা যাবেনা তবে অধিকাংশ কাজ আপনি মোবাইলের মাধ্যমে করে মাসে ভালো পরিমাণে টাকা আয় করতে পারবেন।

এখন অনেক বাংলাদেশী আছে যারা অনলাইন থেকে প্রত্যেক মাসে লক্ষ্য লক্ষ টাকা আয় করে চলেছেন আর এই বিষয় নিয়ে যদি আপনাদের আর কোন প্রশ্ন থাকে তাহলে অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন। 

Leave a Comment