ডেঙ্গু রোগের ঘরোয়া চিকিৎসা সম্পর্কে জেনে নিন

প্রিয় পাঠক আপনি কি ডেঙ্গু রোগের ঘরোয়া চিকিৎসা সম্পর্কে সঠিক গাইডলাইন খুঁজছেন? যদি খুঁজে থাকেন তাহলে এই পোস্টটি পড়ুন। কেননা আমরা আমাদের এই পোস্টের মধ্যে  ডেঙ্গু রোগের ঘরোয়া চিকিৎসা সম্পর্কে বিস্তারিত ব্যাখ্যা করা হয়েছে। তাহলে আর দেরি কেন! ঝটপট সম্পূর্ণ পোস্টটি মনোযোগ দিয়ে পড়ে নিন।

ডেঙ্গু রোগের ঘরোয়া চিকিৎসাঃ ভুমিকা

ডেঙ্গু জ্বর একটি মশাবাহিত ভাইরাল সংক্রমণ। এটি বিশ্বের গ্রীষ্মমন্ডলীয় এবং উপক্রান্তীয় অঞ্চলে সাধারণত দেখা যায়। এডিস মশার কামড়ে ডেঙ্গু হয়। এই রোগটি সংক্রামিত হয় যখন মশা একটি সংক্রামিত ব্যক্তিকে কামড় দেয় এবং তারপর ভাইরাস বহন করার পর একটি অসংক্রমিত ব্যক্তিকে কামড় দেয়।

ডেঙ্গু রোগের ঘরোয়া চিকিৎসা সম্পর্কে জেনে নিন
ডেঙ্গু রোগের চিকিৎসা সম্পর্কে জেনে নিন

দেশে প্রতিদিনই ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হচ্ছে। রোগীর সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে। সংক্রমণকে একেবারেই অবহেলা করা উচিত নয়, কারণ এটি গুরুতর পর্যায়ে অগ্রসর হলে মৃত্যুর ঝুঁকি রয়েছে। এখানে ডেঙ্গু রোগের লক্ষণ  ও ডেঙ্গু রোগের ঘরোয়া চিকিৎসা সম্পর্কে আলোচনা করা হলো।

ডেঙ্গু রোগের লক্ষণ

> ডেঙ্গুর সাধারণ লক্ষণ হল জ্বর। শরীরের তাপমাত্রা ১০১ ডিগ্রি থেকে ১০৩ ডিগ্রি পর্যন্ত হতে পারে। জ্বর অব্যাহত থাকতে পারে এবং ঘামের মাধ্যমে জ্বর ছেড়ে দেওয়ার পরে আবারও জ্বর হতে পারে। 

> ডেঙ্গুর অন্যতম লক্ষণ হলো শরীর ব্যথা। মাথাব্যথার সাথে, চোখের পিছনে ব্যথা হতে পারে। ত্বকে লাল দাগ বা ফুসকুড়ি হতে পারে।

> শরীর ঠান্ডা লাগতে পারে। ক্ষুধা কমে যাওয়া, শরীরে মালিশ করার উপসর্গও দেখা দিতে পারে।গুরুতর ডেঙ্গুর লক্ষণগুলির মধ্যে রয়েছে গুরুতর পেটে ব্যথা, পেট ফুলে যাওয়া, রক্ত ​​বমি হওয়া, মাড়ি থেকে রক্ত ​​পড়া, ত্বকের নীচে রক্তপাত, শ্বাস নিতে অসুবিধা, ঠান্ডা বা ঘাম অনুভব করা, দ্রুত স্পন্দন এবং তন্দ্রা/চেতনা হারানো।

ডেঙ্গু রোগের ঘরোয়া চিকিৎসা 

> ডেঙ্গু হলে বিশ্রাম নিতে হবে। পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি ও তরল খাবার খেতে হবে। শরীর বেশি হাইড্রেটেড থাকলে মাথাব্যথা ও পেশির ব্যথা কমে যাবে।

> ডেঙ্গু রোগীদের প্লাটিলেট কমে যায়। তাই প্লাটিলেট বাড়ায় এমন খাবার খান। যেমন সাইট্রাস ফল, চিনাবাদাম, দই, সূর্যমুখী বীজ, সবুজ চা, ক্যাপসিকাম, ব্রকলি, পালং শাক, আদা, রসুন এবং হলুদ।

> পেয়ারার শরবত পান করা যেতে পারে। ভিটামিন সি সমৃদ্ধ এই পানীয়টি ইমিউন সিস্টেমকে উদ্দীপিত করবে এবং ডেঙ্গু সংক্রমণ দূর করবে।

> নিম পাতার রস রক্তের প্লাটিলেট বাড়াতে ভালো কাজ করে। এটি শ্বেত রক্তকণিকার সংখ্যাও বাড়ায়। নিম পাতায় রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধির গুণও রয়েছে।

ডেঙ্গু রোগের ঘরোয়া চিকিৎসা:  শেষকথা 

প্রিয় পাঠক আজকে আমরা আমাদের এই পোস্টের মধ্যে ডেঙ্গু রোগের ঘরোয়া চিকিৎসা সম্পর্কে বিস্তারিত বর্ণনা করেছি। আশা করছি আমাদের এই পোস্টটি পড়ার মাধ্যমে আপনি উপকৃত হয়েছেন এবং এখন আপনি খুব সহজেই ডেঙ্গুর ঘরোয়া চিকিৎসা করতে সক্ষম হবেন। সুস্থ দেহ সুন্দর মন এই কামনা করে আমাদের আজকের আলোচনা এখানেই শেষ করছি। ভালো থাকবেন, সুস্থ থাকবেন। ধন্যবাদ।

আরও পড়ুনঃ গুগল নিউজে 

Leave a Comment