ঘরে বসে বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম 2023

বিকাশ একাউন্ট খুললে রয়েছে অনেক ধরণের ক্যাশব্যাক অফার সহ নতুন একাউন্ট খোলার বোনাস। নতুন বিকাশ একাউন্ট খুলে লেনদেন করলেই বিকাশ থেকে অনেক অফার দিয়ে থাকে। আপনি বিকাশ একাউন্ট খুলে বিভিন্ন ধরণের লেনদেন করে ১০০-২০০ টাকা অব্দি অফার পেয়ে যাবেন। তো চলুন, কিভাবে ঘরে বসে বিকাশ একাউন্ট খুলতে হয়, সেই বিষয়ে ফিরে আসা যাক।

বিকাশ কি?

বিকাশ হচ্ছে একটি মোবাইল ব্যাংকিং সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান। আমাদের দেশের অধিকাংশ মানুষ বিকাশ ব্যবহার করে তাদের টাকা দেশের এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে পাঠিয়ে থাকে। বিভিন্ন সময় আমাদের আত্মীয়-স্বজন কিংবা বন্ধু-বান্ধবের কাছে টাকা পাঠাতে হয়। অতিদ্রুত টাকা দেশের এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে পাঠানোর জন্য আমাদের দেশে অনেক মোবাইল ব্যাংকিং সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান রয়েছে। কিন্তু, সবথেকে জনপ্রিয় একটি মোবাইল ব্যাংকিং সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান হচ্ছে বিকাশ।

আপনি যদি একটি বিকাশ একাউন্ট খুলেন, তবে সহজেই আপনার টাকা মোবাইলের মাধ্যমে নিমিশে অন্যদের কাছে পাঠাতে পারবেন। এছাড়াও, বিকাশে মাঝে মাঝেই বিভিন্ন ধরণের ক্যাশব্যাক অফার দিয়ে থাকে।

বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম ২০২৩

বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম
বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম

আমরা যদি একটি বিকাশ একাউন্ট খুলতে চাই, তবে ৪টি মাধ্যমে বিকাশ একাউন্ট খুলতে পারি। নিচে আমি বিকাশ একাউন্ট খোলার ৪টি পদ্ধতি উল্লেখ করে দিচ্ছি। আপনি যেকোনো একটি পদ্ধতি অনুসরণ করেই বিকাশ একাউন্ট খুলতে পারবেন।

  1. বিকাশের মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে
  2. বিকাশ এজেন্ট এর কাছে থেকে একাউন্ট খুলে নেয়া
  3. ডিজিটাল রেজিস্ট্রেশন পয়েন্টে গিয়ে বিকাশ একাউন্ট খোলা
  4. বিকাশ গ্রাহক কেন্দ্রে গিয়ে একাউন্ট খোলা।

বিকাশ একাউন্ট খোলার জন্য কি কি প্রয়োজন?

বিকাশ একাউন্ট খুলতে আমাদের যা যা লাগবে তার একটি ছোট লিস্ট আমি নিচে দিয়ে দিলাম।

  • জন্ম নিবন্ধন সার্টিফিকেট অথবা জাতীয় পরিচয় পত্র কিংবা ড্রাইভিং লাইসেন্স বা পাসপোর্ট
  • স্মার্টফোন, তবে বাটন মোবাইল দিয়েও একাউন্ট খুলতে পারবেন।
  • পাসপোর্ট সাইজের ছবি

অ্যাপ দিয়ে বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম

আমরা এখন ঘরে বসেই বিকাশ অ্যাপ দিয়ে একটি বিকাশ একাউন্ট নিমিশেই খুলে ফেলতে পারি। বিকাশ অ্যাপ দিয়ে একটি বিকাশ একাউন্ট খুলতে যা যা লাগে তার একটি লিস্ট নিচে পেয়ে যাবেন।

  • স্মার্টফোন (আন্ড্রয়েড বা আইফোন)
  • আপনার আসল জাতীয় পরিচয়পত্র

আরও পড়ুন : ই পাসপোর্ট চেক করার নিয়ম

ঘরে বসে বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম [year]

আমরা চাইলে ঘরে বসেই আমাদের হাতের স্মার্টফোন দিয়েই একটি বিকাশ একাউন্ট খুলে ফেলতে পারি। এজন্য আমাদের প্রয়োজন হবে ইন্টারনেট সংযোগ সহ একটি স্মার্টফোন এবং আমাদের আসল জাতীয় পরিচয়পত্র। উপরে আমি ইতোমধ্যে বলে দিয়েছি বিকাশ একাউন্ট খুলতে হলে আমাদের কি কি প্রয়োজন। তো চলুন, ঘরে বসে বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম [year] দেখে নেয়া যাক।

  1. প্রথমেই আমাদের ফোনের প্লে স্টোর কিংবা অ্যাপ স্টোর থেকে বিকাশ অ্যাপ ইন্সটল করতে হবে।
  2. এবার বিকাশ অ্যাপ-টি ওপেন করুন।
  3. এখন লগইন/রেজিস্ট্রেশন এ ক্লিক করুন।
বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম
বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম
  1. এখন যে নাম্বারে বিকাশ অ্যাকাউন্ট খুলতে চান সেই নাম্বারটি সঠিকভাবে লিখে নিন।
  2. এরপর আপনার সিমটি যে মোবাইল অপারেটরের সিম সেটি সিলেক্ট করে দিন। যেমন: বাংলালিংক,রবি, গ্রামীণফোন।
  3. এখন আপনার মোবাইলে একটি ৬ ডিজিটের  ওটিপি (ওয়ান টাইম পাসওয়ার্ড) যাবে। সেই ৬ ডিজিটের কোডটি বিকাশ অ্যাপ থেকে অটোমেটিক নিয়ে নিবে।
  1. এরপর আপনার এনআইডি কার্ড এর  উপরের পৃষ্টার ছবি তুলে সাবমিট করতে হবে।
  2. অতঃপর আবারও আপনার জাতীয় পরিচয় পত্রের অপর পৃষ্ঠার ছবি তুলে সাবমিট করুন।
  3. এখন আপনার নিজের ছবি তুলুন। যদি অন্য কারো একাউন্ট খুলে দেন, তবে তার ছবি তুলবেন সামন ক্যামেরা দিয়ে। অতঃপর তীর আইকনে ক্লিক করবেন।
  4. ছবি সাবমিট দেয়ার সাথে সাথেই আপনার বিকাশ একাউন্ট খোলা হয়ে যাবে।

উপরে যে ধাপগুলো আমি উল্লেখ করে দিয়েছি, এগুলো অনুসরণ করে আপনি সহজেই একটি বিকাশ একাউন্ট খুলতে পারবেন ঘরে বসেই। উপরোক্ত ধাপগুলো সঠিকভাবে অনুসরণ করার পর আপনার বিকাশ একাউন্ট একটিভ হতে একটু সময় নিবে। এরপর আপনার যে সিম দিয়ে বিকাশ একাউন্ট খুলেছেন, সেই সিমে কয়েকটি ম্যাসেজ আসবে। ম্যাসেজ আসার পর নিচের ধাপগুলো অনুসরণ করতে হবে।

বিকাশ একাউন্ট খোলার পর যা যা করতে হবে :

আপনার সিমে যদি ম্যাসেজ আসে, তবে

  1. আপনি *২৪৭# ডায়াল করবেন আপনার মোবাইলের ডায়াল প্যাডে গিয়ে।
  2. এরপর Active Menu Pin অপশন পাবেন, সেখানে 1 লিখে রিপ্লাই দিবেন।
  3. এখন আপনার বিকাশ একাউন্ট এর পিন সেট করতে বলবে। ৫ সংখ্যার একটি পিন সেট করে নিবেন।
  4. আবারও আপনার দেয়া পিন নাম্বার চাইবে। একটু আগেই যে ৫ সংখ্যার পিন দিয়েছেন, সেটি দিবেন।
  5. অতঃপর, আপনার একাউন্ট একটিভ হয়ে যাবে।

নতুন বিকাশ একাউন্ট খোলার পর যদি বিকাশ অ্যাপ এ লগিন করে আপনার নাম্বারে ২৫ টাকা রিচার্জ করেন,তবে সঙ্গে সঙ্গে ৫০ টাকা ক্যাশব্যাক পেয়ে যাবেন। এছাড়াও, পেমেন্ট এবং অন্যান্য লেনদেন করলে পাবেন আরও অনেক বোনাস ও ক্যাশব্যাক অফার।

E Porcha খতিয়ান অনুসন্ধান করুন অনলাইনে

এজেন্টের মাধ্যমে বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম

আপনার কাছে যদি একটি স্মার্টফোন না থাকে, তবে বাটন মোবাইল দিয়ে এজেন্টের মাধ্যমে একটি বিকাশ একাউন্ট খুলে নিতে পারবেন। এজন্য আপনার কাছাকাছি রয়েছে এমন একটি বিকাশ এজেন্টের কাছে আপনার মোবাইল এবং এনআইডি কার্ড নিয়ে গেলে আপনাকে একটি বিকাশ একাউন্ট খুলে দিবে। নিম্নে এজেন্টের মাধ্যমে বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম উল্লেখ করে দিলাম।

বিকাশ এজেন্টের কাছে একাউন্ট খোলার জন্য যা যা লাগবে:

  • জাতীয় পরিচয় পত্র(NID)/পাসপোর্ট এর মূল কপি এবং ফটোকপি/ ড্রাইভিং লাইসেন্স
  • একটি মোবাইল
  • পাসপোর্ট সাইজের ছবি

একজন বিকাশ এজেন্টের কাছে আপনি মোবাইল এবং পাসপোর্ট সাইজের ছবি ও জাতীয় পরিচয়পত্র নিয়ে গেলে আপনার বিকাশ একাউন্ট খুলে দিবে।এজন্য নিচের ধাপগুলো অনুসরণ করতে হবে।

  • এজেন্টের কাছে প্রথমেই আপনার এনআইডি অথবা এনআইডি কার্ডের এক কপি ফটোকপি সঙ্গে নিয়ে যেতে হবে।
  • এনআইডি কার্ডের সাথে অবশ্যই ০২ কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি নিয়ে যাবেন।
  • এরপর এজেন্ট আপনার কাছে যে নাম্বারে বিকাশ একাউন্ট খুলতে চান, সেটি চাইবে।
  • বিকাশ এজেন্ট আপনার সকল তথ্য নিয়ে সাবমিট করবে। সাবমিট করার পর কনফার্মেশন এসএমএস আসবে। অতঃপর আপনার বিকাশ নাম্বারে কনফার্মেশন এসএমএস আসবে।
  • কনফার্মেশন নাম্বার দিয়ে আপনার বিকাশ একাউন্ট এর পিন সেট করে নিবেন। এভাবেই করেই বিকাশ এজেন্ট এর থেকে একটি বিকাশ একাউন্ট খুলে নিতে পারবেন।

তো, এই ছিলো এজেন্টের কাছে থেকে বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম। এছাড়াও, বিকাশ এজেন্ট আপনাকে তার স্মার্টফোন দিয়েও একটি বিকাশ একাউন্ট খুলে দিতে পারে আমার প্রথমেই দেখানো বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম অনুসারে।

আমাদের শেষ কথা

আজকের এই পোস্টে আমি আপনাদের সাথে বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেছি। আপনি যদি বিকাশ একাউন্ট কিভাবে খুলতে হয় না জেনে থাকেন, তবে আশা করছি এই পোস্টটি আপনার জন্য অনেক সহায়ক হয়েছে। ঘরে বসে কিভাবে বিকাশ একাউন্ট খুলতে হয় এবং এজেন্টের মাধ্যমে কিভাবে বিকাশ একাউন্ট খুলতে হয় এ সমন্ধে আপনার যদি কোনো প্রশ্ন থাকে, তবে অবশ্যই মন্তব্য করবেন। আজকের মতো এখানেই শেষ করছি। আল্লাহ হাফেয।

Leave a Comment