মাসে লাখ টাকা আয় করার উপায়

আমাদের মাঝে অনেকেই জানেন না যে, আমরা চেষ্টা করলেই প্রতি মাসে লাখ টাকা আয় করতে পারি। অবাক হচ্ছেন? আপনি চাইলে ঘরে বসে অনলাইনে প্রতি মাসে লক্ষ টাকা আয় করতে পারবেন। কীভাবে ঘরে বসে অনলাইনের মাধ্যমে প্রতি মাসে ১ লক্ষ টাকা ইনকাম করতে হয় এ বিষয় নিয়ে আজকের এই পোস্টে আপনাদের সাথে বিস্তারিত আলোচনা করবো। তো চলুন, শুরু করা যাক।

মাসে লাখ টাকা আয় করার উপায়

মাসে লাখ টাকা আয় করার উপায়
মাসে লাখ টাকা আয় করার উপায়

প্রতি মাসে লাখ টাকা আয় করা যায় নাকি? অনেকের মনেই সন্দেহ জাগবে। অবাক হওয়ার মতো কথা হলেও এটাই সত্য যে আমরা চাইলেই প্রতি মাসে লাখ টাকা ইনকাম করতে পারি। সঠিক উপায় এবং কি কাজ করে অনলাইনে টাকা আয় করা যায় না জানার কারণে অনেকেই টাকা ইনকাম করতে পারেন না। আজকের এই ব্লগে আপনাদের সাথে এমন কিছু উপায় শেয়ার করবো, যেগুলো অনুসরণ করে কাজ করলে মাসে লক্ষ টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

প্রতি মাসে লাখ টাকা ইনকাম করার উপায়সমূহ

  • ব্লগিং করে মাসে লাখ টাকা আয়
  • ইউটিউবিং করে মাসে লক্ষ টাকা ইনকাম
  • ফ্রিল্যান্সিং করে মাসে লাখ টাকা ইনকাম

উপরে উল্লেখ করে দেয়া তিনটি পদ্ধতি অনুসরণ করে কাজ করতে পারলে প্রতি মাসে লক্ষ টাকা ইনকাম করতে পারবেন। অনেকেই এসব পদ্ধতিতে প্রতি মাসে কয়েক লক্ষ টাকার অধিক ইনকাম করছে। তো চলুন, উপরে উল্লেখ করে দেয়া এই অনলাইনে ইনকাম করার পদ্ধতি ৩টি নিয়ে আরও বিস্তারিত আলোচনা করা যাক।

ব্লগিং করে মাসে লাখ টাকা আয় করার উপায়

আমাদের এই ওয়েবসাইটে নিশ্চয়ই গুগলে সার্চ করে এসেছেন। আপনার এবং আমার মতো অনেকেই গুগলে বিভিন্ন বিষয় জানার জন্য সার্চ করে থাকে। গুগল আমাদের যেসব তথ্য দেখায় সেগুলো কোথা থেকে পায় জানেন? বিভিন্ন ওয়েবসাইট থেকে। অনেকেই ওয়েবসাইট তৈরি করে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে লেখালেখি করে থাকে। তারা তাদের ওয়েবসাইটে লেখালেখি করে টাকা ইনকাম করে থাকে। এটাই ব্লগিং।

আপনিও চাইলে ব্লগিং করে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। এজন্য আপনাকে প্রথমেই একটি ওয়েবসাইট তৈরি করতে হবে। এরপর, সেই ওয়েবসাইটে বিভিন্ন বিষয়ের উপরে লেখালেখি করে আপনার ওয়েবসাইটে গুগল অ্যাডসেন্স এর অনুমোদন নিয়ে ওয়েবসাইটে অ্যাডস যুক্ত করে কিংবা অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে টাকা ইনকাম করতে পারেন।

অনেকেই তার ওয়েবসাইটে গুগল অ্যাডসেন্স এর অ্যাডস যুক্ত করে এবং অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে প্রতি মাসে লাখ টাকা ইনকাম করে থাকে। আপনি যদি একটি ওয়েবসাইট তৈরি করে সেখানে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং কিংবা গুগল অ্যাডসেন্স এর অ্যাডস যুক্ত করেন, তবে প্রতি মাসে লক্ষ টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

ব্লগিং করে টাকা উপার্জন করতে চাইলে আপনাকে প্রথমে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করতে হবে। এরপর সেখানে মানুষ যেসব বিষয় জানার জন্য গুগলে সার্চ করে থাকে, এমন বিষয় নিয়ে লেখালেখি করতে হবে। এরপর আপনার ওয়েবসাইটে গুগল অ্যাডসেন্স এর জন্য আবেদন করে অনুমোদন নেয়ার পর ওয়েবসাইটে বিজ্ঞাপন দেখানোর মাধ্যমে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। কিংবা, যেকোনো ই-কমার্স ওয়েবসাইটের পন্যের অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে টাকা ইনকাম করতে পারেন। এভাবে করে ব্লগিং করে প্রতি মাসে লাখ টাকা আয় করতে পারবেন।

ইউটিউবিং করে টাকা আয় করার উপায়

ইউটিউব থেকে টাকা ইনকাম করতে চাইলে আপনার একটি ইউটিউব চ্যানেল থাকতে হবে। ইউটিউব চ্যানেল ছাড়া ইউটিউব থেকে টাকা আয় করার কোনো উপায় নেই। একটি চ্যানেল তৈরি করা অনেক সহজ। একটি ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করার পর সেটিতে আপনাকে প্রতিনিয়ত ভিডিও আপলোড করতে হবে। প্রতিনিয়ত বলতে প্রতিদিন না। তবে, আপনাকে নির্দিষ্ট সময় পর পর ভিডিও আপলোড করতে হবে। আজ একটি ভিডিও আপলোড করলেন আবার ১ মাস পর আরেকটি, এভাবে করলে হবে না। ২ দিন পর পর কিংবা ৭ দিন পর পর ভিডিও আপলোড করতে হবে।

আরও পড়ুন – মাসে ৫০ হাজার টাকা আয় করার উপায়

এক্ষেত্রে আপনি যেকোনো ধরণের ভিডিও আপলোড করতে পারেন। মানুষ যে ধরনের ভিডিও দেখতে পছন্দ করে এমন ভিডিও বানাতে হবে। এক্ষেত্রে, প্রযুক্তি, ফানি ভিডিও, স্ট্যাটাস ভিডিও, তথ্য মূলক ভিডিও, বাচ্চাদের ভিডিও, গেমিং ভিডিও, মোবাইল রিভিউ সহ যেকোনো ধরণের ভিডিও বানাতে পারেন। এমন ভিডিও বানাবেন, যেখানে আপনি দীর্ঘ সময় কাজ করতে পারবেন। আপনার ইচ্ছে রয়েছে, দক্ষতা রয়েছে এমন ভিডিও বানানোর চেষ্টা করবেন।

কিভাবে ইউটিউব থেকে টাকা আয় করা যায়

এখন প্রশ্ন হচ্ছে, আমি তো শুধু ইউটিউবে ভিডিও বানিয়ে আপলোড করলেই হবে না। ইনকাম আসবে কথা থেকে? ইউটিউব চ্যানেল থেকে ইনকাম করতে চাইলে আপনাকে গুগল এডসেন্স থেকে মনিটাইজেশন নিতে হবে। গুগল এডসেন্স হচ্ছে একটি বিজ্ঞাপনদাতা প্রতিষ্ঠান। আপনার চ্যানেলে গুগল এডসেন্স এর অনুমোদন নেয়ার জন্য চ্যানেলে ১০০০ সাবস্ক্রাইবার থাকতে হবে। আপনার আপলোড করা ভিডিওতে ৪০০০ ঘণ্টা ওয়াচ টাইম থাকতে হবে। এসব শর্ত পূরণ হওয়ার পর আপনি মনিটাইজেশন এর জন্য আবেদন করতে পারবেন। গুগল থেকে আপনার চ্যানেল রিভিউ করে দেখবে। যদি কোনো সমস্যা না থাকে, তবে এডসেন্স থেকে মনিটাইজেশন দিয়ে দিবে।

এরপর আপনার চ্যানেলের প্রতিটি ভিডিওতে এডস দেখাবে। মানুষ যখন আপনার চ্যানেল এর ভিডিও দেখবে, তখন তাদেরকে গুগল এডসেন্স থেকে এড দেখানো হবে। এই এড স ক্লিক এর পরিমাণ, ভিউ এর পরিমানের উপর নির্ভর করে ইনকাম হয়ে থাকে। ইউটিউব চ্যানেল থেকে যা ইনকাম হবে, সবকিছু আপনার এডসেন্স একাউন্ট এ জমা হবে। এরপর সেই অর্থ আপনি যেকোনো ব্যাংক এর মাধ্যমে তুলে নিতে পারবেন। এটাই হচ্ছে ইউটিউব থেকে প্রতি মাসে লাখ টাকা আয় করার উপায়।

এছাড়াও, আরেকটি ইউটিউব থেকে টাকা ইনকাম করার উপায় রয়েছে। সেটি হচ্ছে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে ইনকাম করা। এক্ষেত্রে আপনি যদি কোনো প্রডাক্ট এর রিভিউ করে থাকেন, তবে উক্ত প্রডাক্ট যেকোনো ই-কমার্স এর আপনার অ্যাফিলিয়েট এর রেফারেল লিংক দিতে পারেন। সেই লিংক থেকে যদি কেউ পন্য কিনে, তবে আপনি একটি নির্দিষ্ট পরিমাণে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। এছাড়াও, আপনি চাইলে বিভিন্ন প্রোডাক্ট বিক্রি করে মাসে লাখ টাকা আয় করতে পারেন।

ফ্রিল্যান্সিং করে মাসে লাখ টাকা ইনকাম

ফ্রিল্যান্সিং করে প্রতি মাসে লাখ টাকা ইনকাম করা সম্ভব। অবিশ্বাস্য কিছু নয়। আমাদের দেশের অনেকেই ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস থেকে কাজ করে প্রতি মাসে লক্ষাধিক টাকা ইনকাম করে থাকে। আপনি যদি অনলাইনে কাজ করে প্রতি মাসে লক্ষ টাকা ইনকাম করতে চান, তবে ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ করতে পারেন। ফ্রিল্যান্সিং এর অনেক সেক্টর আছে। এসব সেক্টর এর যে কাজ করার ইচ্ছে আছে সেই কাজ শিখে মার্কেটপ্লেসে কাজ করে টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

গ্রাফিক ডিজাইন, ভিডিও এডিটিং, ফটো এডিটিং, এসইও সার্ভিস সহ আরও অনেক সেক্টর রয়েছে। আপনি এসব সেক্টরের কাজ শিখে সেই কাজ করে অনলাইন মার্কেটপ্লেসে কাজ করে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। প্রতি মাসে লাখ টাকা আয় করার সবথেকে কার্যকরী উপায় হচ্ছে ফ্রিল্যান্সিং করা।

ফ্রিল্যান্সিং করে টাকা আয় করতে চাইলে আপনাকে প্রথমেই কাজ শিখতে হবে। এজন্য, আপনি যে কাজ করে টাকা ইনকাম করতে চান, সেই কাজ যেকোনো আইটি প্রতিষ্ঠান কিংবা গুগল ও ইউটিউব থেকে শিখতে পারেন। এরপর, অনলাইন মার্কেটপ্লেসে একাউন্ট তৈরি করে দেশি-বিদেশী বায়ারের কাজ করে প্রতি মাসে লাখ টাকা আয় করতে পারবেন। যে কাজ করে ফ্রিল্যান্সিং করবেন, সে কাজে দক্ষ হলে কাজ পাওয়ার সম্ভাবনা সবথেকে বেশি হবে এবং দীর্ঘসময় যাবত কাজ করতে পারবেন।

আমাদের শেষ কথা

আজকের এই পোস্টে আপনাদের সাথে প্রতি মাসে লাখ টাকা ইনকাম করার উপায় নিয়ে আলোচনা করেছি। আশা করছি, এই পোস্ট থেকে প্রতি মাসে কীভাবে অনলাইনে টাকা আয় করার যায় সেটি জানতে পেরেছেন। এসব পদ্ধতি অনুসরণ করে সহজেই প্রতি মাসে টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

Leave a Comment