ব্রেন স্ট্রোক এর লক্ষণসমূহ কী কী জেনে রাখা জরুরী

ব্রেন স্ট্রোক কী, ব্রেন স্ট্রোক কেন হয় এবং ব্রেন স্ট্রোক এর লক্ষণ সমূহ কী কী তা জেনে রাখা আবশ্যক। আজকের এই পোস্টে আপনাদের সাথে ব্রেন স্ট্রোক এর লক্ষণগুলো নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করবো। লক্ষণসমূহ জেনে রাখলে, মানুষের ব্রেন স্ট্রোক কেন হয় তা জানতে পারবেন এবং সতর্ক হয়ে যেতে পারবেন।

ব্রেন বা মস্তিস্ক আমাদের শরীরের অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটি অংশ। আমাদের পুরো শরীরকে মস্তিস্ক পরিচালনা করে। যখন মস্তিস্কে ব্যাঘাত ঘটে, তখন ব্রেন স্ট্রোক হয়। তো চলুন, ব্রেন স্ট্রোক সম্পর্কে আরও বিস্তারিত জেনে নেয়া যাক।

ব্রেন স্ট্রোক এর লক্ষণ
ব্রেন স্ট্রোক এর লক্ষণ

ব্রেন স্ট্রোক কী

মস্তিস্কে যখন রক্ত সরবরাহ কম হয় বা রক্ত সরবরাহে ব্যাঘাত ঘটে, তখন ব্রেন স্ট্রোক হয়। ব্রেন স্ট্রোক হওয়ার কারণে আমাদের মস্তিস্কে অক্সিজেন সরবরাহ কমে যায়। কখনো আবার একেবারেই অক্সিজেন যায় না। অক্সিজেন সরবরাহে ঘাটতি তৈরি হওয়ার কারণে আমাদের মস্তিস্কের কোষের মৃত্যু হয়। মস্তিস্কের কোষ মারা গেলে শরীরের বিভিন্ন অঙ্গ কাজ করা বন্ধ করে দেয়।

কারণ, আমাদের পুরো শরীর মস্তিস্ক পরিচালনা করে। এভাবে করে মৃত্যু অব্দি হয়ে থাকে। সারসংক্ষেপে বলা যায়, মস্তিস্কে রক্ত এবং অক্সিজেন এর চলাচলে ব্যাঘাত ঘটার ফলে ব্রেন স্ট্রোক হয়। ব্রেন স্ট্রোক হলে মস্তিস্কের কোষের মৃত্যু হয় এবং একারণেই মানুষের মৃত্যু হয়ে থাকে। আশা করছি, ব্রেন স্ট্রোক কী বুঝতে পেরেছেন।

ব্রেন স্ট্রোক কেন হয়

সঠিকভাবে জীবনযাপন না করলেই ব্রেন স্ট্রোক এর ঝুঁকি বাড়ে। বছরের পর বছর শরীরের কোনো যত্ন না নেয়া, যেকোনো রোগের লক্ষণ দেখা দিলেও রোগের চিকিৎসা না করা বরং এড়িয়ে যাওয়া, এ সব কিছুই একসময় ব্রেন স্ট্রোকে রূপ নেয়। লাইফস্টাইল ডিজিজ এর কারণেই ব্রেন স্ট্রোক হয় বলে দক্ষিণা হেলথ অ্যান্ড এডুকেশন-এর CEO ডাঃ রত্না দেবী মনে করেন।

উচ্চ কোলেস্টেরল, ডায়াবেটিস সহ আরও অনেক রোগের কারণেও ব্রেন স্ট্রোক হয়ে থাকে। ব্রেন স্ট্রোক বিভিন্ন কারণেই হতে পারে। তবে, মূলত শরীরের যত্ন না নেয়ার কারণেই ব্রেন স্ট্রোক এর ঘটনা বেশি ঘটতে দেখা যায়। পরিমিত পরিমাণে ঘুমাতে হবে। অনেকেই রাত জাগেন এবং ঠিকমতো ঘুমান না। তাদের ক্ষেত্রে ব্রেন স্ট্রোক হওয়ার ঝুঁকি অনেক বেশি।

আরও পড়ুন – ব্রেন ক্যান্সারের লক্ষণসমূহ সম্পর্কে জেনে নিন

যেকোনো রোগের লক্ষণ বা উপসর্গ দেখা দিলে অবশ্যই ডাক্তারের কাছে যেতে হবে। কারণ, বিভিন্ন রোগের উপসর্গ অবহেলা করলে তা থেকেই ব্রেন স্ট্রোক হয়ে থাকে। ব্রেন স্ট্রোক এর লক্ষণ দেখেও অনেকেই অবহেলা করেন। ব্রেন স্ট্রোক হওয়ার পূর্বেই ব্রেন স্ট্রোক এর লক্ষণ দেখা যায়। যদি অবহেলা করা হয়, তবে তা অনেক বড় আকার ধারণ করে এবং একসময় মানুষের মৃত্যু হয়। তাই ব্রেন স্ট্রোক এর লক্ষণ বা উপসর্গ দেখা দিলে তা অবহেলা করা উচিত না। তো চলুন, ব্রেন স্ট্রোকের লক্ষণগুলো কি কী জেনে নেয়া যাক।

ব্রেন স্ট্রোক এর লক্ষণ

ব্রেন স্ট্রোক হওয়ার পূর্বে কিছু লক্ষণ দেখা যায়। ব্রেন স্ট্রোক এর উপসর্গগুলো দেখেও অনেকেই অবহেলা করে থাকেন। ঠিক এ কারণেই ব্রেন স্ট্রোক করে অধিকাংশ মানুষ। ব্রেন স্ট্রোক এর প্রাথমিক পর্যায়ে ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে যদি চিকিৎসা করা হয়, তবে মৃত্যুর হার অনেক কমিয়ে আনা সম্ভব।

অনেকেই ব্রেন স্ট্রোক এর উপসর্গগুলো সম্পর্কে জানেন না। তো চলুন, কী কী উপসর্গ দেখা যায় ব্রেন স্ট্রোক হওয়ার পূর্বে, তা জেনে নেয়া যাক।

ব্রেন স্ট্রোক এর লক্ষণসমূহ –

দুর্বলতা এবং অসাড়তা: মাঝে মধ্যেই শরীর দুর্বল লাগলে এড়িয়ে যাওয়া উচিত নয়। এটা বড়সড় রোগের লক্ষণ হতে পারে। মুখের এক দিক, এক পা বা হাত অসাড় হয়ে গেলে তৎক্ষণাৎ চিকিৎসকের কাছে যেতে হবে। কারণ এগুলো সব ব্রেন স্ট্রোক এর লক্ষণ। যা আমি একটু আগেই আলোচনা করেছি যে, ব্রেন স্ট্রোক হলে আমাদের শরীরের কিছু অংশ কাজ করা বন্ধ করে দেয়।

ভারসাম্য হারানো: রোগী হঠাৎ পড়ে গেলে কিংবা ভারসাম্য হারালে বুঝতে হবে গুরুতর কোনও সমস্যা হচ্ছে। বমি বমি ভাব, বমি, জ্বর, হঠাৎ পড়ে যাওয়া ব্রেন স্ট্রোক এর দিকে ইঙ্গিত করে। কারও আচমকা হেঁচকি উঠতে শুরু করে। স্ট্রোকের ঠিক আগে কারও গিলতে সমস্যা হতে পারে। এমন সব লক্ষণ দেখা যায় ব্রেন স্ট্রোক হওয়ার পূর্বে। তাই, এই লক্ষণগুলোকে হেলা ফেলা করা যাবে না। লক্ষণগুলো দেখা দিলে ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে চিকিৎসা শুরু করতে হবে।

আরও পড়ুন – ফুসফুস ক্যান্সারের লক্ষণসমূহ সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নিন

প্রচণ্ড মাথাব্যথা: মাথাব্যথা কখনই উপেক্ষা করা উচিত নয়। কোনও কারণ ছাড়া হঠাৎ হঠাৎ মাথাব্যথা শুরু হলে চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া উচিত। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে মাথাব্যথা দ্রুত সেরেও যায়। কিন্তু এর সঙ্গে অজ্ঞান হয়ে যাওয়া কিংবা মাথা ঘোরা শুরু হলে উপেক্ষা করা ঠিক হবে না। কারণ, আমাদের মাথায় শরীরের সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ অংশ মস্তিস্ক রয়েছে। মস্তিস্কে যদি কোনো ব্যাঘাত ঘটে তখন মাথা ব্যাথা শুরু হতে পারে। যা থেকে ব্রেন স্ট্রোক হওয়ার অনেক ঝুঁকি থাকে।

দৃষ্টিশক্তি হারানো বা হাত দুর্বল হয়ে পড়া: হঠাৎ করে দৃষ্টিশক্তি হারালে সেটা স্ট্রোকের লক্ষণ হতে পারে। সেই সঙ্গে হাতেরও দুর্বলতা, অনুভূতি চলে যাওয়া, জড়ানো কথা বা কথা বুঝতে সমস্যা হওয়া গুরুতর স্ট্রোকের লক্ষণ। এই উপসর্গগুলো সময়ের সঙ্গে সঙ্গে আরও খারাপ হতে পারে। রোগীর দৃষ্টিশক্তি যদি হঠাৎ ঝাপসা হয়ে যায়, বিশেষ করে এক চোখে, তাহলে ফেলে রাখা উচিত নয়। এটা মারাত্মক ঝুঁকিপূর্ণ হতে পারে।

মূলত এসব লক্ষণ দেখা যায় ব্রেন স্ট্রোক হলে। ব্রেন স্ট্রোক হয়েছে কী না জানার জন্য আমরা কিছু পদ্ধতি অবলম্বন করতে পারি যা নিচের উল্লেখ করে দিয়েছি।

ব্রেন স্ট্রোক দ্রুত শনাক্ত করার পদ্ধতি

স্ট্রোক হয়েছে কিনা বোঝার কয়েকটি উপায় রয়েছে। এগুলো হচ্ছে –

  • মুখ – রোগীকে হাসতে বলতে হবে। হাসতে গেলে যদি চোয়াল ঝুলে যায়, বুঝতে হবে স্ট্রোক হয়েছে।
  • হাত – দুহাত সামনের দিকে বাড়াতে বলতে হবে। যদি হাত ঝুলে যায়, সেটা স্ট্রোকের লক্ষণ।
  • কথা – রোগী কোনও কিছু পড়তে বা একটা বাক্য বলতে পারছে কি না খেয়াল করতে হবে। জড়ানো কথা কিংবা কথা বলার সময় মুখ দিয়ে অদ্ভুত শব্দ বেরোলে সেটা স্ট্রোকের লক্ষণ।

ব্রেন স্ট্রোক হয়েছে কী না দ্রুত শনাক্ত করার জন্য উপরোক্ত পদ্ধতিগুলো অনুসরণ করতে পারেন।

আমাদের শেষ কথা

ফেরদাউস অ্যাকাডেমির আজকের এই ব্লগ পোস্টে আপনাদের সাথে ব্রেন স্ট্রোক এর লক্ষণ, ব্রেন স্ট্রোক কেন হয় এসব বিষয় নিয়ে আলোচনা করেছি। আশা করছি, পোস্টটি সম্পূর্ণ পড়েছেন। প্রাথমিক অবস্থায় স্ট্রোক শনাক্ত করা গেলে নির্মূল করা সম্ভব। তাই, সর্বদা সতর্ক থাকতে হবে এবং লক্ষণসমূহ দেখা দিলে দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে চিকিৎসা করতে হবে। এড়িয়ে গেলে স্ট্রোক থেকে মৃত্যু অব্দি হতে পারে। স্বাস্থ্য বিষয়ক এমন কন্টেন্ট পেতে আমাদের ওয়েবসাইট নিয়মিত ভিজিট করুন। আল্লাহ্‌ হাফেয।

Leave a Comment