তাহাজ্জুদ নামাজের নিয়ম | মহিলাদের তাহাজ্জুদ নামাজের নিয়ম

তাহাজ্জুদ নামাজ আদায় করতে হলে তাহাজ্জুদ নামাজের নিয়ম জেনে রাখা জরুরী। তাহাজ্জুদ নামাজ মধ্যরাত্রে নির্জনে উঠে আদায় করতে হয়। তাহাজ্জুদ নামাজ আদায় করার মাধ্যমে আমরা মহান আল্লাহ্‌ তায়ালার কাছে আমাদের দোয়া পৌঁছাতে পারি। অনেকেই তাহাজ্জুদ নামাজ আদায় করার নিয়ম সম্পর্কে অবগত নন। আজকের এই পোস্টে আপনাদের সাথে মহিলাদের তাহাজ্জুদ নামাজের নিয়ম নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করবো।

আপনি যদি আগে তাহাজ্জুদ নামাজ আদায় না করে থাকেন, কিন্তু তাহাজ্জুদ নামাজ আদায় করতে চান, তবে তাহাজ্জুদ নামাজ কীভাবে আদায় করতে হয় তা জানা আবশ্যক। পোস্টটি সম্পূর্ণ পড়লে তাহাজ্জুদ নামাজের ফজিলত এবং তাহাজ্জুদ নামাজ আদায় করতে হলে কী কী জানতে হবে তা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারবেন। তো চলুন, শুরু করা যাক।

তাহাজ্জুদ নামাজের নিয়ম
তাহাজ্জুদ নামাজের নিয়ম

তাহাজ্জুদ নামাজের তাৎপর্য

হজরত আবু হুরায়রা রাদিয়াল্লাহু আনহু বলেন, রাসুলুল্লাহ সা্ল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, ‘ফরজ নামাজের পর সব নফল নামাজের মধ্যে শ্রেষ্ঠ হলো তাহাজ্জুদ নামাজ তথা রাতের নামাজ।’ (মুসলিম, তিরমিজি, নাসাঈ)

অর্থাৎ, সকল ফরজ নামাজের পর সুন্নত নামাজ এর গুরুত্ব বেশি। এরপর, সকল নফল নামাজের পর তাহাজ্জুদ নামাজের গুরুত্ব বেশি। মহান আল্লাহ্‌ তায়ালা স্বয়ং তাহাজ্জুদ নামাজ আদায় করার জন্য বলেছেন।

আল্লাহ তাআলা প্রিয়নবি হযরত মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামকে বিশেষভাবে রাতে তাহাজ্জুদ নামাজ পড়ার নির্দেশ দিয়েছিলেন। আল্লাহ তাআলা বলেন-
‘হে চাদর আবৃত, রাতের সালাতে দাঁড়াও কিছু অংশ ছাড়া।’ (সুরা মুজাম্মিল : আয়াত ১-২)

মহান আল্লাহ তায়ালা মহানবী হযরত মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামকে তাহাজ্জুদ নামাজ আদায় করতে বলেছেন। নবী কারিম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম আমাদেরকে তাহাজ্জুদ আদায় করতে বলেছেন। এ থেকেই তাহাজ্জুদ নামাজের গুরুত্ব কত তা বোঝা যায়।

তাহাজ্জুদ নামাজের নিয়ম

তাহাজ্জুদ নামাজ আদায় করার জন্য তাহাজ্জুদ নামাজের নিয়ম জানা আবশ্যক। কারণ, তাহাজ্জুদ নামাজের নিয়ত এবং তাহাজ্জুদ নামাজ আদায় করার সময়সূচি অন্যান্য নামাজ থেকে ভিন্ন তো চলুন, তাহাজ্জুদ নামাজের নিয়ম জেনে নেয়া যাক।

তাহাজ্জুদ নামাজ আদায় করার নিয়ম

তাহাজ্জুদ নামাজ দুই রাকাত করে করে আদায় করতেন মহানবী হযরত মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম। দুই রাকাত করে ৮ রাকাত অব্দি তাহাজ্জুদ নামাজ আদায় করা উত্তম। তাহাজ্জুদ নামাজ আদায় করার জন্য আলাদা কোনো সূরা নেই। আপনি যেকোনো সূরা দিয়েই অন্যান্য নামাজের মতো করে নামাজ আদায় করতে পারবেন।

প্রথমে জায়নামাজে দাঁড়াতে হবে এবং জায়নামাজের দোয়া পড়তে হবে –

اِنِّىْ وَجَّهْتُ وَجْهِىَ لِلَّذِىْ فَطَرَالسَّمَوَتِ وَاْلاَرْضَ حَنِيْفَاوَّمَااَنَا مِنَ الْمُشْرِكِيْنَ

আরবি উচ্চারণঃ ইন্নি ওয়াজ্জাহাতু ওজহিয়া লিল্লাযী ফাতারাচ্ছামাওয়াতি ওয়াল আরদা হানিফাঁও ওয়ামা আনা মিনাল মুশরিকীন।

বাংলা অনুবাদ: নিশ্চই আমি তাঁহার দিকে মুখ ফিরাইলাম, যিনি আসমান জমিন সৃষ্টি করিয়াছেন । আমি মুশরিকদিগের দলভুক্ত নহি।

আরও পড়ুন – মাগরিবের নামাজের নিয়ত বাংলায় এবং আরবিতে

জায়নামাজের দোয়া পড়া হয়ে গেলে তাহাজ্জুদ নামাজের নিয়ত করে নামাজ আদায় করা শুরু করতে হবে।

তাহাজ্জুদ নামাজের নিয়ত

نَوَيْتُ اَنْ اُصَلِّىَ رَكَعَتِى التَّهَجُّدِ – اَللهُ اَكْبَر

অর্থ : দুই রাকাআত তাহাজ্জুদের নিয়ত করছি.. অতঃপর ‘আল্লাহু আকবার’ বলে নিয়ত বেঁধে নামাজ পড়া।

এরপর, সানা পড়তে হবে। সানা মুখস্ত না থাকলে নিচে থেকে সানা মুখস্ত করে নিতে পারেন।

سُبْحَانَكَ اَللَّهُمَّ وَ بِحَمْدِكَ وَ تَبَارَكَ اسْمُكَ وَ تَعَالِىْ جَدُّكَ وَ لَا اِلَهَ غَيْرُكَ

উচ্চারণ : সুবহানাকা আল্লাহুম্মা ওয়া বিহামদিকা, ওয়া তাবারাকাসমুকা, ওয়া তাআলা জাদ্দুকা ওয়া লা ইলাহা গাইরুকা। (তিরমিজি, আবু দাউদ মিশকাত)

অতঃপর, আউজুবিল্লাহ বিসমিল্লাহ্‌ পড়তে হবে এবং সূরা ফাতিহা ও অন্য সূরা পড়তে হবে। এরপর, অন্যান্য নামাজের মতো করেই রুকু এবং সিজদা করতে হবে। রুকুতে এবং সিজদাতে গিয়ে তসবিহ পাঠ করতে হবে। এভাবে করে দুইবার সিজদা দিয়ে উঠে দাঁড়িয়ে আরও এক রাকাত নামাজ আদায় করতে হবে।

এভাবে করে দুই রাকাত তাহাজ্জুদের নামাজ আদায় করতে হবে। অন্যান্য নামাজের মতো করেই দুই রাকাত পড়ে শেষ বৈঠকে বসতে হবে। শেষ বৈঠকে বসে দরুদ শরিফ, তাশাহুদ এবং দোয়া মাসুরা পড়ে সালাম ফিরিয়ে নামাজ আদায় সম্পন্ন করতে হবে। এভাবে করে, ৮ রাকাত অব্দি নামাজ আদায় করা উত্তম।

মহিলাদের তাহাজ্জুদ নামাজের নিয়ম

পুরুষ-মহিলা সবার জন্যই তাহাজ্জুদ নামাজ আদায় করা উচিত। কারণ, এই নামাজের মাঝে রয়েছে ফরজ নামাজ এবং সুন্নত নামাজের পরে সবথেকে বেশি সাওয়াব। মহানবী হযরত মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম নিজে তাহাজ্জুদের নামাজ আদায় করতেন এবং আমাদেরকে আদায় করতে বলেছেন। মহিলাদের তাহাজ্জুদ নামাজ আদায় করার জন্য প্রথমেই তাহাজ্জুদ নামাজের নিয়ত করতে হবে। তাহাজ্জুদ নামাজের নিয়ত সবার জন্য একই।

আরও পড়ুন – এশার নামাজের নিয়ত বাংলায় এবং আরবিতে

এক্ষেত্রে, আপনি বাংলায় বা আরবিতে তাহাজ্জুদ নামাজের নিয়ত করতে পারেন। সানা, সূরা ফাতিহা এবং অন্য সূরা পড়ে আল্লাহু আকবার বলে রুকুতে যেতে হবে। রুকুতে গিয়ে সুবহানা রাব্বিয়াল আজিম পড়তে হবে। এরপর, সামিয়াল্লাহু লিমান হামিদা পড়ে উঠে দাঁড়াতে হবে এবং রাব্বানা লাকাল হামদ পড়তে হবে।

অতঃপর, আল্লাহু আকবার বলে সিজদায় যেতে হবে। সিজদায় গিয়ে সুবহানা রাব্বিয়াল আলা পড়তে হবে বিজোড় বার। উঠে বসে আবারও সিজদা করতে হবে একই ভাবে। এরপর উঠে দাঁড়াতে হবে এবং প্রথম রাকাতের মতো করে সূরা ফাতিহা, অন্য সূরা পরে আল্লাহু আকবার বলে রুকুতে যেতে হবে। রুকুতে গিয়ে সুবহানা রাব্বিয়াল আজিম পড়তে হবে। এরপর, সামিয়াল্লাহু লিমান হামিদা পড়ে উঠে দাঁড়াতে হবে এবং রাব্বানা লাকাল হামদ পড়তে হবে।

অতঃপর, আল্লাহু আকবার বলে সিজদায় যেতে হবে। সিজদায় গিয়ে সুবহানা রাব্বিয়াল আলা পড়তে হবে বিজোড় বার। উঠে বসে আবারও সিজদা করতে হবে একই ভাবে। দুইবার সিজদা করার পর শেষ বৈঠকে বসে তাশাহুদ, দরুদ শরিফ এবং দোয়া মাছুরা পড়তে হবে। অতঃপর, সালাম ফিরিয়ে নামাজ আদায় সম্পন্ন করতে হবে।

এভাবে করে দুই রাকাত তাহাজ্জুদ নামাজ আদায় করতে পারবেন মহিলারা। মহিলা-পুরুষ সবাই একইভাবে তাহাজ্জুদের ২ রাকাত নামাজ আদায় করতে পারবেন। ২ রাকাত করে ৮ রাকাত অব্দি তাহাজ্জুদের নামাজ আদায় করা উত্তম। মধ্যরাতের এই নামাজ আদায় করে আমরা আল্লাহ্‌ কাছে আমাদের দোয়া করতে পারি। তাহাজ্জুদের নামাজ পরে দোয়া করলে সেই দোয়া কবুল হওয়ার সম্ভাবনা থাকে সবথেকে বেশি।

তাহাজ্জুদ নামাজের সময়

তাহাজ্জুদ নামাজ পড়ার জন্য রাতের শেষ তৃতীয়াংশ উত্তম সময়। তাহাজ্জুদ নামাজ রাত ২ ঘটিকা থেকে ফজরের ওয়াক্ত হওয়ার আগে অব্দি পড়া যায়। তাহাজ্জুদ নামাজ আদায় করার পর বিতরের নামাজ আদায় করতে হয়। যদি তাহাজ্জুদের নামাজের জন্য ঘুম না ভাঙ্গার সম্ভাবনা থাকে, তবে এশার নামাজ আদায় করার পর তাহাজ্জুদের নামাজ আদায় করে নিতে হবে। এরপর, বিতরের ৩ রাকাত ওয়াজিব নামাজ আদায় করতে হবে।

কিন্তু তাহাজ্জুদের নামাজ মধ্যরাতে আদায় করা উত্তম। মহানবী হযরত মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম মধ্যরাতে তাহাজ্জুদের নামাজ আদায় করতেন।

আমাদের শেষ কথা

ফেরদাউস একাডেমির আজকের এই পোস্টে আপনাদের সাথে তাহাজ্জুদ নামাজের নিয়ম এবং মহিলাদের তাহাজ্জুদ নামাজের নিয়ম নিয়ে আলোচনা করেছি। আশা করছি, পোস্টটি সম্পূর্ণ পড়েছেন। এমন আরও ইসলামিক পোস্ট পড়তে আমাদের ওয়েবসাইট ভিজিট করুন। আল্লাহ্‌ হাফেজ।

Leave a Comment