টিকটকে ভাইরাল হওয়ার উপায়

টিকটক করেন, কিন্তু টিকটকে ভাইরাল হওয়ার উপায় জানতে আগ্রহী নন, এমন মানুষ হয়তো খুঁজে পাওয়া দুস্কর। আপনিও যদি একজন টিকটকার হয়ে থাকেন, কিংবা নতুন টিকটক শুরু করেছেন, এবং টিকটকে ভাইরাল হতে চান, তবে এই পোস্টটি আপনার জন্য অনেক সহায়ক হবে। কারণ, আজকের এই পোস্টে আপনাদের সাথে টিকটকে ভাইরাল হওয়ার উপায়সমূহ নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করবো। এতে করে, টিকটকে কীভাবে ভাইরাল হতে হয়, জানতে পারবেন এবং ভাইরাল হয়ে আপনার টিকটক আইডির ফলোয়ার অনেক গুণ বৃদ্ধি করে নিতে পারবেন।

টিকটক কি?

টিকটক হলো একটি সামাজিক মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম যেখানে ৬০ সেকেন্ডেরও কম সময়ের ভিডিও তৈরি, আপলোড, দেখা এবং শেয়ার করার সুযোগ রয়েছে।২০১৬ সালে চীনে সর্বপ্রথম টিকটক চালু হয়েছিল এবং ২০১৭ সালে বিশ্বব্যাপী চালু হয়েছিল। টিকটক বর্তমানে বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় সামাজিক মিডিয়া প্ল্যাটফর্মগুলির মধ্যে একটি, যার ১ বিলিয়নেরও বেশি একটিভ ইউজার রয়েছে।

টিকটক ব্যবহারকারীরা তাদের ভিডিওতে নাচ, গান, কৌতুক, শিক্ষামূলক এবং অন্যান্য বিষয়বস্তু শেয়ার করতে পারে। ব্যবহারকারীরা তাদের ভিডিওতে ফিল্টার, ইফেক্ট ব্যবহার করতে পারে। টিকটক ব্যবহারকারীরা একে অপরের সাথে তাদের ভিডিও শেয়ার করতে পারে এবং একে অপরের ভিডিওতে লাইক, কমেন্ট এবং শেয়ার করতে পারে।

টিকটক একটি জনপ্রিয় প্ল্যাটফর্ম কারণ এটি ব্যবহার করা সহজ এবং এটি ব্যবহারকারীদের তাদের সৃজনশীলতা প্রকাশ করার সুযোগ দেয়। টিকটক ব্যবহারকারীরা তাদের ভিডিওগুলিকে বিশ্বব্যাপী দর্শকদের সাথে শেয়ার করতে পারে। তাছাড়া, অনেকেই টিকটক ব্যবহার করে টাকা আয় করে এবং কেউ জনপ্রিয়তা অর্জন করার জন্য টিকটক করে থাকে।

টিকটকে ভাইরাল হওয়ার উপায়

টিকটকে ভাইরাল হওয়ার উপায়
টিকটকে ভাইরাল হওয়ার উপায়

টিকটক ব্যবহার করে ভিডিও বানায় কিন্তু ভাইরাল হতে চায় না এমন মানুষ আমাদের দেশে খুবই কম আছে। যারা টিকটক করে, তাদের মাঝে অনেকেই শুধুমাত্র জনপ্রিয়তা পাওয়ার জন্য এবং পরিচিতি বৃদ্ধি করার জন্য টিকটক করে থাকে। শুধু আমাদের দেশেই নয়, যেসব দেশে টিকটক ব্যবহারকারী আছে, প্রায় সবাই টিকটক করে ভাইরাল হতে চায়। আপনিও যদি টিকটকে ভাইরাল হওয়ার জন্য টিকটকে ভাইরাল হওয়ার উপায় খুঁজে থাকেন, তবে এগুলো নিচে পেয়ে যাবেন।

  • ট্রেন্ডিং সাউন্ড এবং হ্যাশট্যাগ ব্যবহার করুন : টিকটকে সবসময় নতুন নতুন ট্রেন্ড চলে। আপনি যদি একজন টিকটকার হয়ে থাকেন কিংবা টিকটক ব্যবহার করে ভিডিও দেখে থাকেন, তবে এটি আপনার জানা কথা। আপনি যদি আপনার ভিডিওতে ট্রেন্ডিং সাউন্ড এবং হ্যাশট্যাগ ব্যবহার করেন, তাহলে আপনার ভিডিও আরও বেশি লোকের কাছে পৌঁছাবে। আপনার টিকটকে বানানো ভিডিও যত বেশি মানুষের কাছে যাবে, তত বেশি রিচ হবে এবং এই সংখ্যা মাল্টিপ্লাই হবে। এতে করে আপনার ভাইরাল হওয়ার সম্ভাবনা অনেকাংশে বেড়ে যাবে।
  • নতুন এবং আকর্ষণীয় ভিডিও তৈরি করুন : টিকটকে ভাইরাল হওয়ার উপায়গুলোর মাঝে দ্বিতীয় উপায় হচ্ছে, আকর্ষণীয় এবং ইউনিক ভিডিও তৈরি করা। আপনার ভিডিও যদি সৃজনশীল এবং আকর্ষণীয় না হয়, তাহলে লোকেরা তা দেখতে চাইবে না। তাই এমন ভিডিও তৈরি করার চেষ্টা করুন যা অন্যদের থেকে আলাদা। সর্বদা নতুন এবং ইউনিক টপিকে ভিডিও বানানোর চেষ্টা করবেন। এতে করে আপনার ভিডিও বেশি মানুষের কাছে পৌঁছাবে এবং আপনার ফলোয়ার সংখ্যা বৃদ্ধি হবে। ফলোয়ার সংখ্যা বৃদ্ধি পেলে আপনার জনপ্রিয়তা আরও বৃদ্ধি পাবে। এভাবে করে, প্রতিনিয়ত নতুন এবং আকর্ষণীয় ভিডিও বানিয়ে টিকটকে ভাইরাল হতে পারবেন।
  • নিয়মিত ভিডিও আপলোড করুন : আপনি যত বেশি ভিডিও আপলোড করবেন, আপনার ভিডিও তত বেশি লোকের কাছে পৌঁছাবে। তাই চেষ্টা করুন প্রতিদিন অন্তত একটি ভিডিও আপলোড করতে। নিয়মিত ভিডিও আপলোড করার ফলে আপনার টিকটক একাউন্ট এর রিচ বেড়ে যাবে এবং এতে করে আপনার টিকটক একাউন্ট এর ফলোয়ার বৃদ্ধি পাবে। নিয়মিত ভিডিও আপলোড করলে ফলোয়ার সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ার সাথে সাথে আপনার জনপ্রিয়তা আরও বৃদ্ধি পাবে। এভাবে করে সহজেই টিকটকে ভাইরাল হতে পারবেন।
  • অন্য টিকটকারদের সাথে যোগাযোগ করুন : অন্য টিকটকারদের সাথে যোগাযোগ করুন এবং তাদের ভিডিওতে লাইক, কমেন্ট এবং শেয়ার করুন। এতে আপনার ভিডিও আরও বেশি লোকের কাছে পৌঁছাবে। এছাড়াও, আপনি অন্য টিকটকারদের ভিডিও প্রোমোট করে এবং তাদের থেকে নিজের ভিডিও বা টিকটক আইডি প্রোমোট করে সহজেই ফলোয়ার সংখ্যা বৃদ্ধি, ভিডিওতে ভিউ বৃদ্ধি, কমেন্ট বৃদ্ধি, রিয়েক্ট বৃদ্ধি করতে পারেন। এভাবে করেও আপনি টিকটকে ভাইরাল হতে পারবেন।
  • টিকটকের অ্যালগরিদমকে বোঝার চেষ্টা করুন : টিকটকের অ্যালগরিদম এমন ভিডিওগুলিকে আরও বেশি প্রচার করে যা বেশি সংখ্যক লোক দেখে এবং পছন্দ করে। তাই আপনার ভিডিওগুলি এমনভাবে তৈরি করার চেষ্টা করুন যাতে বেশি সংখ্যক লোক দেখে এবং পছন্দ করে। টিকটক অ্যালগরিদম যদি আপনার ভিডিও কী বিষয়ে সেটা বুঝে যায়, তবে সেই ধরণের ভিডিও দেখতে যারা বেশি পছন্দ করে, তাদের সামনে আপনার ভিডিও নিয়ে যাবে। এতে করে আপনার টিকটক ভিডিও এবং একাউন্ট এর রিচ বৃদ্ধি পাবে। এভাবে করে আপনি টিকটকে ভাইরাল হতে পারবেন।

টিকটকে ভাইরাল হওয়ার কোনও নিশ্চয়তা নেই, তবে উপরে উল্লিখিত এই টিপসগুলি অনুসরণ করে আপনি আপনার ভিডিওগুলিকে আরও বেশি মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে পারবেন। এর ফলে, আপনার টিকটক আইডির ফলোয়ার বৃদ্ধি হবে এবং আপনার আইডি ভাইরাল হওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যাবে।

টিকটক ভিডিও ভাইরাল হয় না কেন

অনেকেই প্রশ্ন করেন, টিকটক ভিডিও ভাইরাল হয় না কেন। টিকটকে ভাইরাল হওয়ার উপায় মেনে আপনি যদি টিকটকে ভিডিও বানান, তবে সেগুলো ভাইরাল হওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেশি। কিন্তু, আপনি যদি টিকটকে ভাইরাল হওয়ার উপায় অনুসরণ না করেই ভিডিও তৈরি করে আপলোড করা শুরু করেন, তাহলে কখনোই ভিডিও ভাইরাল হবে না। ভিডিও ভাইরাল করতে চাইলে আপনাকে নিয়মিত ভিডিও বানাতে হবে। এছাড়াও, ট্রেন্ড ভিডিও তৈরি করতে হবে এবং ভিডিও এর ডেসক্রিপশন এ বিভিন্ন হ্যাশট্যাগ ব্যবহার করতে হবে।

নিয়মিত ভিডিও আপলোড করলে, আকর্ষণীয় এবং ইউনিক টপিকে ভিডিও আপলোড করলে আপনার ভিডিও ভাইরাল হওয়ার চান্স রয়েছে অনেক বেশি।

টিকটক অটো ফলোয়ার

অনেকেই টিকটক অটো ফলোয়ার নিয়ে ফেমাস হতে চায়। অটো ফলোয়ার দিয়ে আপনার ভিডিওতে কোনো ভিউজ আসবে না, কমেন্ট বা রিয়েক্ট আসবে না। আপনি যদি টিকটক অটো ফলোয়ার নেন, তবে এটি শুধু একটি সংখ্যা হিসেবে আপনার একাউন্টে শো করবে। টিকটকে ভাইরাল হতে চাইলে এসব অটো ফলোয়ার/অটো লাইক/অটো কমেন্ট কোনো কাজে আসবে না। উপরে টিকটকে ভাইরাল হওয়ার উপায়গুলো অনুসরণ করে সহজেই ভাইরাল করতে পারবেন আপনার টিকটক আইডি।

টিকটক থেকে টাকা ইনকাম করার উপায়

টিকটকে ভাইরাল হওয়ার উপায়গুলো অনুসরণ করে ভাইরাল হওয়ার পর আপনি চাইলে টিকটক থেকে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। আপনার আশেপাশের অনেককেই দেখে থাকবেন, টিকটক থেকে টাকা উপার্জন করছে। আপনিও চাইলে ভাইরাল হওয়ার পর টিকটক থেকে টাকা ইনকাম করা শুরু করে দিতে পারবেন। এজন্য, আপনি টিকটক ক্রিয়েটর ফান্ড/মনিটাইজেশন/প্রডাক্ট বিক্রি/আর্টিস্ট প্রোমোট করে টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

টিকটক থেকে টাকা ইনকাম করার উপায় সম্পর্কে আরও বিস্তারিত জানতে টিকটক থেকে টাকা আয় করার উপায় পোস্টটি সম্পূর্ণ পড়তে পারেন। এতে করে, কীভাবে টিকটক থেকে অর্থ উপার্জন করা যায়, এ বিষয়ে জানতে পারবেন।

আমাদের শেষ কথা

আজকের এই পোস্টে আপনাদের সাথে টিকটকে ভাইরাল হওয়ার উপায় শেয়ার করেছি। এই পোস্টে যেসব উপায় শেয়ার করেছি, এগুলো অনুসরণ করে টিকটকে ভিডিও আপলোড করতে পারলে আপনার টিকটক আইডি ভাইরাল হবে এবং আপনি জনপ্রিয়তা ও টাকা উপার্জন করতে পারবেন। এমন আরও পোস্ট পড়তে আমাদের ওয়েবসাইট ভিজিট করুন।

Leave a Comment