একাদশ শ্রেণীতে ভর্তি ১৫-২৫ জুলাই, ক্লাস শুরু ৩০ জুলাই

একাদশ শ্রেণীতে ভর্তি ১৫-২৫ জুলাই, ক্লাস শুরু ৩০ জুলাই-আগামী ১৫ জুলাই ২০২৪ তারিখ থেকে চলতি বছরে এসএসসি ও সমমান পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়া শিক্ষার্থীদের একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির কার্যক্রম শুরু হবে, যা চলবে ২৫ জুলাই ২০২৪ তারিখ পর্যন্ত। আর ক্লাস শুরু হবে ৩০ জুলাই ২০২৪ তারিখ থেকে। আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় কমিটি এই বিষয়ে এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে।

একাদশ শ্রেণীতে ভর্তি ১৫-২৫ জুলাই

একাদশ শ্রেণীতে ভর্তি ১৫-২৫ জুলাই, ক্লাস শুরু ৩০ জুলাই

ইতিমধ্যে একাদশ শ্রেণীতে ভর্তির নীতিমালা প্রকাশ করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ। এ বছরও শিক্ষার্থীদের রেজাল্টের ভিত্তিতে অনলাইনে ভর্তির আবেদন করতে হবে। তিন ধাপে আবেদন নেওয়া হবে। আগামী ২৬ মে থেকে ১১ জুন ২০২৪ পর্যন্ত শিক্ষার্থীরা অনলাইনের মাধ্যমে আবেদন করতে পারবেন।

উল্লেখ্য যে, গত ১২ মে ২০২৪ তারিখে এই বছর এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয়। এ বছর ১৬ লাখ ৭২ হাজার ১৫৩ জন শিক্ষার্থী পাস করেছে। শিক্ষা বিভাগের দেয়া তথ্য অনুযায়ী, সারা দেশে একাদশ শ্রেণিতে আসন রয়েছে ২৫ লাখ। অর্থাৎ, এসএসসি পাস করা সবাই কলেজে ভর্তি হলেও আট লাখের বেশি আসন ফাঁকা থেকে যাবে। 

অনলাইনে আবেদন প্রক্রিয়া

অনলাইনে www.xiclassadmission.gov.bd এই ওয়েবসাইট এর মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা একাদশ শ্রেণীতে ভর্তির আবেদন করতে পারবেন। ১৫০ টাকা আবেদন ফি জমা দিয়ে সর্বনিম্ন ৫টি এবং সর্বোচ্চ ১০টি কলেজে পছন্দক্রমের ভিত্তিতে আবেদন করতে পারবেন শিক্ষার্থীরা।

একজন শিক্ষার্থী যতগুলো কলেজে আবেদন করবে, তার মধ্য থেকে তার মেধা, কোটা (প্রযোজ্য ক্ষেত্রে) ও পছন্দক্রমের ভিত্তিতে একটি কলেজে তার অবস্থান নির্ধারণ করা হবে। শুধুমাত্র শিক্ষার্থীদের এসএসসি বা সমমানের পরীক্ষার ফলের ভিত্তিতে ভর্তি করা হবে।

আগামী ১২-১৩ জুন প্রথম পর্যায়ের আবেদন যাচাই, বাছাই ও নিষ্পত্তি করা হবে। এই সময়েই পুনঃনীরিক্ষণে ফল পরিবর্তিত শিক্ষার্থীদের আবেদন গ্রহণ করা হবে। এরপর  আগামী ২৩ জুন ২০২৪ তারিখ রাত ৮টায় প্রথম পর্যায়ের নির্বাচিত শিক্ষার্থীদের ফল প্রকাশ করা হবে।

৩০ জুন থেকে ২ জুলাই ২০২৪ তারিখ পর্যন্ত দ্বিতীয় পর্যায়ের এবং ৯-১০ জুলাই ২০২৪ তারিখ তৃতীয় পর্যায়ের আবেদন গ্রহণ করা হবে।

৪ জুলাই ২০২৪ তারিখ রাত ৮টায় দ্বিতীয় পর্যায়ের আবেদনের ফল ও প্রথম মাইগ্রেশনের ফল এবং ১২ জুলাই ২০২৪ তারিখ রাত ৮টায় তৃতীয় পর্যায়ের আবেদনের ফল ও দ্বিতীয় মাইগ্রেশনের ফল প্রকাশ করা হবে।

ভর্তি ফি

এবার ঢাকা মেট্রোপলিটনের এমপিওভুক্ত কলেজে বাংলা ও ইংরেজি ভার্সনে সর্বোচ্চ ভর্তি ফি নির্ধারণ করা হয়েছে ৫ হাজার টাকা। ঢাকা ছাড়া অন্যান্য মেট্রোপলিটন এলাকায় বাংলা ও ইংরেজি ভার্সনের কলেজে ভর্তির ফি হবে ৩ হাজার টাকা।

জেলা পর্যায়ের কলেজে দুটি সংস্করণের ভর্তি ফি ২০০০ টাকা এবং উপজেলা বা মফস্বল পর্যায়ের কলেজে দুটি সংস্করণের ভর্তি ফি ১৫০০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে।

নন-এমপিও বা আংশিক এমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রে ঢাকা মেট্রোপলিটন এলাকার কলেজের বাংলা ভার্সনের জন্য ডেভেলপমেন্ট ফি, সেশন চার্জ ও ভর্তি ফি সাড়ে সাত হাজার টাকা এবং ইংরেজি ভার্সনের জন্য সাড়ে আট হাজার টাকা।

আর ঢাকা ছাড়া মেট্রোপলিটন এলাকার নন-এমপিও কলেজগুলোতে বাংলা ভার্সনে ভর্তির জন্য ৫ হাজার টাকা এবং ইংরেজি ভার্সনে ভর্তির জন্য ৬ হাজার টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। জেলা পর্যায়ের কলেজগুলোর ভর্তি ফি বাংলা সংস্করণে ৩ হাজার টাকা এবং ইংরেজি সংস্করণে ৪ হাজার টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। আর উপজেলা বা মফস্বল পর্যায়ের কলেজগুলোতে বাংলা ভার্সনে ২৫০০ টাকা এবং ইংরেজি ভার্সনে ৩০০০ টাকা ভর্তি ফি নির্ধারণ করা হয়েছে।

এছাড়া সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী সরকারি কলেজগুলো ভর্তি ফি নেবে। কলেজগুলো দরিদ্র, মেধাবী ও বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন শিক্ষার্থীদের ভর্তির জন্য যতদূর সম্ভব ফি মওকুফের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে।

শুধুমাত্র এসএসসি পাস করা বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন শিক্ষার্থীরাই বোর্ডে ম্যানুয়াল ভর্তির জন্য আবেদন করতে পারবে।

সূত্রঃ ‍দৈনিক সমকাল

 

Leave a Comment