আরোয়া নামের অর্থ কি? আরোয়া নামের ইসলামিক অর্থ জেনে নিন

আরোয়া নামের অর্থ কি এবং আরোয়া নামের ইসলামিক অর্থ কি তা নিয়ে আজকের এই পোস্টে আপনাদের সাথে বিস্তারিত আলোচনা করবো। আপনি যদি কারও নামকরণ করতে চান এবং ইসলামিক নামের অর্থ জানতে চান, তবে এই পোস্টটি আপনার জন্য অনেক সহায়ক হবে বলে আশা করছি। কারণ, এই পোস্টে আপনাদের সাথে আরোয়া নামের অর্থ কি এবং আরোয়া নামের ইসলামিক অর্থ নিয়ে আলোচনা করার পাশাপাশি আরও কিছু মেয়েদের ইসলামিক নামের অর্থ নিয়ে আলোচনা করবো।

মেয়ে সন্তান জন্ম নিলে মেয়েদের ইসলামিক নামের অর্থ জেনে আকিকা করে নাম রাখতে হয়। আপনিও যদি আপনার সন্তানের জন্য নাম রাখতে চান, তবে পোস্টটি শুরু থেকে শেষ অব্দি পড়ুন। এছাড়াও, আপনার নাম যদি আরোয়া হয় এবং আপনি আপনার নামের অর্থ না জেনে থাকেন, তবে আপনার নামের অর্থ নিচে পেয়ে যাবেন।

আরোয়া নামের অর্থ কি

আরোয়া নামের অর্থ
আরোয়া নামের অর্থ

আরোয়া নামের অর্থ হচ্ছে স্নিগ্ধতা, সজীবতা, সৌন্দর্য ইত্যাদি। আরোয়া একটি ইসলামিক নাম। এটি মেয়েদের ইসলামিক নাম। আপনার সন্তানের জন্য ইসলামিক নাম রাখতে চাইলে আরোয়া নামটি বাছাই করতে পারেন। কারণ, এই নামটি একটি ইসলামিক নাম এবং সুন্দর একটি নাম। এছাড়াও, এই নামটির অনেক সুন্দর অর্থ রয়েছে। যারা অর্থ জেনে মেয়েদের ইসলামিক নাম রাখতে চান, তাদের প্রথম পছন্দ হিসেবে এই নামটি থাকতে পারে।

আমাদের দেশের অনেক মেয়ের নাম আরোয়া। আরোয়া নামের অনেকেই তাদের নামের অর্থ জানেন না। আরোয়া নামের অর্থ এতক্ষণে জেনে গেছেন। আপনি যদি আপনার সন্তানের আকিকা করে নাম রাখতে চান, তবে আরোয়া নামটি রাখতে পারেন। এছাড়াও, আরোয়া শব্দের সঙ্গে আরও কিছু ইসলামিক নাম যুক্ত করে একটি নাম্ রাখতে পারেন। নিচে আরও কিছু ইসলামিক নাম অর্থসহ উল্লেখ করে দিয়েছি।

আরোয়া নামের ইসলামিক অর্থ কি

আরয়া একটি ইসলামিক নাম। এই ইসলামিক নামটির অর্থ অচ্ছে সৌন্দর্য, সজীবতা, স্নিগ্ধতা ইত্য্যাদি। আপনার মেয়ে শিশুর জন্য ইসলামিক নাম রাখতে চাইলে আরোয়া নামটি বাছাই করতে পারেন। আমাদের দেশের এবং মুসলিম বিশ্বের অনেকেই তাদের মেয়ে সন্তানের জন্য আরোয়া নাম রেখেছেন। আরোয়া শব্দটি অনেক সুন্দর যা আপনার সন্তানের জন্য বাছাই করতে পারেন।

আরও পড়ুন – সাবিয়া নামের অর্থ কি? সাবিয়া নামের ইসলামিক অর্থ জেনে নিন

একটি শিশু জন্ম নিলে তার আকিকা করে নাম রাখতে হয়। আকিকা করার নিয়ম এর মাঝে সন্তানের নামকরণ করার কথা বলা হয়েছে। তাই, পিতা-মাতা হিসেবে সন্তানের নাম রাখতে হবে। এটি পিতা-মাতার একটি কর্তব্য। নাম রাখার সময় অবশ্যই সন্তানের জন্য একটি ইসলামিক নাম বাছাই করতে হবে যে নামের সুন্দর অর্থ রয়েছে।

অনেকেই তার সন্তানের নাম রাখার সময় কোন নামটি রাখবেন তা নিয়ে দ্বিধায় পড়ে যান। আপনি চাইলে আপনার মেয়ে সন্তানের জন্য আরোয়া নাম রাখতে পারেন। আরোয়া নামের অর্থ ইতোমধ্যে উল্লেখ করে দিয়েছি। আপনি চাইলে আ দিয়ে মেয়েদের আরও কিছু ইসলামিক নাম যুক্ত করে একটি সুন্দর নাম আপনার সন্তানের জন্য বাছাই করতে পারেন।

আরওয়া নামের অর্থ কি

আরওয়া একটি ইসলামিক শব্দ। এই নামের অর্থ হছে সৌন্দর্য, সজীবতা এবং স্নিগ্ধতা। অনেকেই তাদের সন্তানের নাম রাখার জন্য ইসলামিক নাম খুঁজে থাকেন। কিন্তু সুন্দর নাম সুন্দর অর্থ সহ খুঁজে না পাওয়ায় নাম রাখতে পারেন না। তাদের জন্য এই নামটি সেরা পছন্দ হবে বলে আশা করছি।

আরও পড়ুন – মানতাহা নামের অর্থ কি? মানতাহা নামের ইসলামিক অর্থ জেনে নিন

আ দিয়ে মেয়েদের ইসলামিক নাম অর্থসহ

আ দিয়ে মেয়েদের অনেক ইসলামিক নাম রয়েছে। আপনি যদি আপনার মেয়ের জন্য আ দিয়ে ইসলামিক নাম অর্থসহ খুঁজে থাকেন, তবে নিচের তালিকা থেকে মেয়ে শিশুর ইসলামিক নাম আ দিয়ে তালিকাটি দেখতে পারেন।

  • আসিয়া (Asia) – নামটির অর্থ – শান্তি স্থাপনকারী।
  • আশরাফী (Ashrafi) – নামটির অর্থ – মুদ্রা, সম্মানিত।
  • আমিনা (আমেনা) (Amena) – নামটির অর্থ – নিরাপদ।
  • আমিনা (Amina) – নামটির অর্থ – আমানত রক্ষাকারিণী
  • আনিসা (Anesa) – নামটির অর্থ – কুমারী, মিস।
  • আনিসা (Anisa) – নামটির অর্থ – বান্ধবী।
  • আদীবা (Adiba) – নামটির অর্থ – মহিলা সাহিত্যিক।
  • আনিফা (Anipa) – নামটির অর্থ – রূপসী।
  • আতিয়া (Atia) – নামটির অর্থ – আগমনকারিণী।
  • আত্বক্বিয়া (Atqiya) – নামটির অর্থ – ধার্মিক।
  • আসির (Asir) – নামটির অর্থ – পছন্দনীয়, মনের মতো স্বপ্ন।
  • আরজা (Arja) – নামটির অর্থ – এক, সুগন্ধময় গাছের নাম।
  • আরজু (Arju) – নামটির অর্থ -আকাঙ্কা।
  • আরমানী (Armai) – নামটির অর্থ – আশাবাদী।
  • আরীকাহ (Areekah) – নামটির অর্থ – আরাম জাযিম, কেদারা।
  • আসমা (Asma) – নামটির অর্থ – আবু বকর (রাঃ)-এর কন্যার নাম।
  • আসমাহ (Asmah) – নামটির অর্থ – নিতান্ত সহজ,সত্যবাদিনী।
  • আসীলা (Asila) – নামটির অর্থ – নিখুঁত, নির্ভেজাল।
  • আসওয়া (Adwa) – নামটির অর্থ – আলো, উজ্জ্বলতা।
  • আতিকা (Atiqa) – নামটির অর্থ – সুন্দরী।
  • আ’শা (Asha) – নামটির অর্থ – ক্ষীণদৃষ্টি সম্পন্ন।
  • আফনান (Afnan) – নামটির অর্থ – গাছের শাখা-প্রশাখা।
  • আমাল (Amal) – নামটির অর্থ – আশা,আকাঙ্কা।
  • আমানী (Amane) – নামটির অর্থ – শান্তিপূর্ণ, নিরাপদজনক।
  • আমল (Amal) – নামটির অর্থ – আশা, বাসনা।
  • আমিরা (Amira) – নামটির অর্থ – রাজকুমারী।
  • আনজুম (Anjum) – নামটির অর্থ – তাঁরা।
  • আসমা (Asma) – নামটির অর্থ – নামসমূহ, নিদর্শন।
  • আনতারা (Antara) – নামটির অর্থ – বীরাঙ্গনা।
  • আরজুমান্দ (ফার্সি) (Arzumand) – নামটির অর্থ -ভাগ্যবান।
  • আনজুমান (Anjuman) – নামটির অর্থ – মাহফিল।
  • আনওয়ারা (আনোয়ারা) (Anwara) – নামটির অর্থ – উজ্জ্বর, জ্যোতিকাল।
  • আবেদা (Abeda) – নামটির অর্থ – ইবাদত কারিণী।
  • আদিলা (Adela) – নামটির অর্থ – ন্যায়বিচারক মহিলা।
  • আরিফা (Arefa) – নামটির অর্থ – পরিজ্ঞাত, মহিলা সাধক।
  • আসিফা (Asefa) – নামটির অর্থ – প্রবল বাতাস।
  • আসিমা (Asema) – নামটির অর্থ – সুরক্ষিত, রাজধানী।
  • আতিরা (Atera) – নামটির অর্থ – সুগন্ধিময়, সুরভি।
  • আফিয়া (Afia) – নামটির অর্থ – পুন্যবর্তী।
  • আকিফা ( Akefa) – নামটির অর্থ – নির্জনবাসী, এক স্থানে অব্যাহতভাবে অবস্থান কারিণী।
  • আতিফা (Atefa) – নামটির অর্থ – দয়ালু, সহানুভূতিশীল।
  • আলিয়া (Alia) – নামটির অর্থ – উচ্চ, মহৎ।
  • আয়িশা (Ayesha) – নামটির অর্থ – রাসূলুল্লাহ (সাঃ)—এর প্রসদ্ধি স্ত্রী, স্বাচ্ছন্দ জীবন যাপন কারিণী।
  • আবীদা (Abida) – নামটির অর্থ – অনুগতা, বাঁদী।
  • আতীকা (Atiqa) – নামটির অর্থ – সম্মানিতা।
  • আযরা (Azra) – নামটির অর্থ – কুমারী।
  • আরূস (Arus) – নামটির অর্থ – পাত্র, দুলহা।
  • আযীযা (Aziza) – নামটির অর্থ – প্রিয়তমা,প্রিয়, শক্তিমান।
  • আতিয়া (Atiya) – নামটির অর্থ – উপহার।
  • আযীমা (Azima) – নামটির অর্থ – মহতী।
  • আফিফা (Afifa) – নামটির অর্থ – সাধ্বী, নির্মল।
  • আকিলা (Aqila) – নামটির অর্থ – বুদ্ধিমুতী।
  • আলীমা (Alima) – নামটির অর্থ – জ্ঞানবতী।
  • আম্বর (Ambar) – নামটির অর্থ – সুগন্ধ দ্রব্য বিশেষ।
  • আরূফা (Arufa) – নামটির অর্থ – বুদ্ধিমতি মহিলা।
  • আসলিয়াহ (Asliyah) – নামটির অর্থ – মাধুরী, মধুময়ী।
  • আনতারাহ (Antaraha) – নামটির অর্থ – বীরাঙ্গনা।
  • আফিয়াত (Afiat) – নামটির অর্থ – পুনবতী, স্বাস্থ্য, শান্তি।
  • আয়েদা (Aeda) – নামটির অর্থ – প্রত্যাবর্তনকারিণী।
  • আযযা (Azza) – নামটির অর্থ – হরিণী, সাহাবীর নাম।
  • আকলিমা (Aklema) – নামটির অর্থ – দেশ, সম্রাজ্ঞী।
  • আফরোজা (Afruza) – নামটির অর্থ – আলোকময় সুন্দর, জ্ঞানী।
  • আয়মান (Ayman) – নামটির অর্থ – শুভ।
  • আফরা (Afra) – নামটির অর্থ – সাদা।
  • আম্মারা (Ammara) – নামটির অর্থ – শ্বাশত।
  • আরিবা (Abira) – নামটির অর্থ – বিশেষজ্ঞ।
  • আফিয়াহ আনিসা (Afiah Aneesa) – নামটির অর্থ – পন্যবতী বান্ধবী।
  • আফিয়া ফাহমীদা (Afia Fahmeeda) – নামটির অর্থ – পন্যবতী বুদ্ধিমতী।
  • আনতারাব ওয়াসীমা (Antara Wasima) – নামটির অর্থ – বীরাঙ্গনা সতীনারী।
  • আমিরাতুন নিসা (Ameeratun Nisa) – নামটির অর্থ – নারীজাতির নেত্রী।

আমাদের শেষ কথা

আজকের এই পোস্টে আপনাদের সাথে আরোয়া নামের অর্থ কি এবং আরোয়া নামের ইসলামিক অর্থ কি তা নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেছি। আশা করছি পোস্টটি সম্পূর্ণ পড়েছেন। আ দিয়ে মেয়েদের ইসলামিক নামের তালিকা থেকে কোন নামটি আপনার পছন্দ হয়েছে জানাতে ভুলবেন না যেন। আজকের মতো এখানেই শেষ করছি। আল্লাহ্‌ হাফেয।

Leave a Comment